শনিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২০, ০৬:১৯ অপরাহ্ন

আইপিএল খেলতে না পারার আক্ষেপ নেই মুস্তাফিজের

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট টাইম : ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ২৬ বার পঠিত

হ্যারি গার্নির বদলি হিসেবে এবারের ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (আইপিএল) কলকাতা নাইট রাইডার্সে খেলার সুযোগ ছিল মোস্তাফিজুর রহমান। এজন্য তিনি পেতেন এক কোটি টাকা।  কিন্তু শ্রীলঙ্কা সফরের জন্য এ টুর্নামেন্টে খেলতে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) থেকে অনুমতি পাননি এ বাঁহাতি পেসার। যে কারণে অনেকেই মনে করেছিলেন দ্য ফিজ হয়তো কষ্ট পেয়েছেন। কিন্তু না। এজন্য তার কোন আক্ষেপও হয়নি। এছাড়া বোর্ডের প্রতিও কোন ক্ষোভ তৈরি হয়নি তার। এক সাক্ষাৎকারে ক্রিকবাজকে এমনটাই জানিয়েছেন সাতক্ষীরার এ ক্রিকেটার।

শ্রীলঙ্কা সফরের জন্যই মূলত আইপিএলে খেলার  অনুমতি পাননি মোস্তাফিজ। বিসিবির এমন কঠিন সিদ্ধান্তের পরও মন খারাপ হয়নি তার। উল্টো তিনি দেশের ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থাটির সিদ্ধান্তকে সম্মান জানিয়েছেন। এ ব্যাপারে মোস্তাফিজ বলেছেন, ‘বিসিবি যদি জানত শ্রীলঙ্কা সিরিজ স্থগিত হবে, তাহলে আমাকে হয়ত আইপিএলের জন্য এনওসি দেওয়া হত। হয়তো আমি  এক কোটি টাকার মত উপার্জন করতে পারতাম। তবে যাই হয়, ভালোর জন্যই হয়। সেটাই হয়েছে।’ 

বাংলাদেশের শ্রীলঙ্কা সফর বাস্তবায়িত হয়নি মূলত শ্রীলঙ্কার কড়াকড়ির কারণে। করোনা মোকাবেলায় সফল দেশটি বিদেশ থেকে আগতদের জন্য ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিন বাধ্যতামূলক করেছে। এই ১৪ দিন আবদ্ধ বলয়ের বাইরে বের হওয়ারই কোনো সুযোগ নেই। বাংলাদেশ দলের ক্ষেত্রেও এমন নিয়মই আরোপিত হত। এ নিয়েই অসন্তোষ ছিল বিসিবির। তাই লঙ্কানদের প্রস্তাব ফিরিয়ে দেয় সংস্থাটি। যে কারণে এ সিরিজও ফের স্থগিত হয়েছে।  এতে সবচেয়ে বড় ক্ষতি হয়েছে মোস্তাফিজের। এক কোটি টাকা অর্থের বিনিময়ে এই শ্রীলঙ্কা সফরের জন্যই হাসিমুখে আইপিএলকে ‘না’ বলেছিলেন তিনি।

সফর স্থগিত হলেও শ্রীলঙ্কার কঠিন সিদ্ধান্তকে এখনো সম্মান জানাচ্ছেন মোস্তাফিজ। যদিও বাংলাদেশের জন্য ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিনও কঠিন হত বলে মনে করেন তিনি, ‘এই টেস্ট সিরিজটা খেলতে পারলে দারুণ হত। শ্রীলঙ্কা আমাদের যে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিনের শর্ত বেঁধে দিয়েছে তা মেনে চলা সম্ভব মনে হয়নি। এমন গুরুত্বপূর্ণ একটা সিরিজের আগে আপনি এতদিন নিজের কক্ষে বসে থাকতে পারেন না, তা আপনি যতই অনুশীলন করুন না কেন। বিসিবি চেষ্টা করেছে। তবে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিন শ্রীলঙ্কার নিয়ম। আমি মনে করি ওদের সিদ্ধান্তকে আমরা সম্মান জানানো উচিৎ।’

লঙ্কা সফরে তিনটি টেস্টার খেলার কথা ছিল বাংলাদেশের। তবে সূচি চূড়ান্ত না হওয়ায় সিরিজ মাঠে গড়ানো নিয়ে তৈরি হয়েছিল চরম অনিশ্চয়তা। শেষ পর্যন্ত গত সোমবার সেটাই সত্যি হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর..