সোমবার, ১৫ অগাস্ট ২০২২, ০৮:৩৮ পূর্বাহ্ন

কুমিল্লায় বৃদ্ধাকে জবাই করে হত্যা!

Reporter Name
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর, ২০২১

কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে জবা বেগম ৭৫ বছর বয়সী এক বৃদ্ধাকে জবাই করে হত্যা করেছে দূর্বৃত্তরা। উপজেলার ঢালুয়া ইউপির চান্দলা গ্রামের মিজানের বাড়িতে মঙ্গলবার রাতের কোন এক সময় এ হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটে। নিহত জবা বেগম ওই গ্রামের মৃত. আব্দুর রশিদের স্ত্রী।

সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, চান্দলা গ্রামের মৃত. আব্দুর রশিদের স্ত্রী জবা বেগমের সংসার জীবনে ৫ ছেলে ও ৪ মেয়ে। মেয়েরা স্বামীর বাড়িতে রয়েছেন। আর ৫ ছেলের মধ্যে ৪ জন প্রবাসে থাকেন। বড় ছেলে পরিবার নিয়ে চট্টগ্রাম থেকে চাকরি করেন। সেই সুবাদে জবা বেগম একতালা বিশিষ্ট ২ ইউনিটের একটি বিল্ডিং ঘরে একাই থাকেন। পাশের একটি টিনের ঘরে মেজু ছেলে জসিম উদ্দিনের স্ত্রী হাছিনা আক্তার স্বপ্না বসবাস করছেন। তিনি সব সময় জবা বেগমের দেখা শুনা করতেন।

প্রতিদিনের মত মঙ্গলবার সকালের স্বপ্না তার শ্বাশুড়ি জবা বেগমের জন্য নাস্তা নিয়ে ঘরে ডুকতে দেখেন ঘরের সকল দরজা খোলা। দ্রুত তার শ্বাশুড়ির রুমে গিয়ে দেখেন মুখে বালিশ চাপা দেয়া তার শাশুড়ি জবা বেগম খাটের ওপর পড়ে আছেন। মুখের ওপর থেকে বালিশ সরালে জবাই করা অবস্থা শাশুড়ির লাশ দেখতে পেয়ে চিৎকার করে অজ্ঞান হয়ে পড়ে স্বপ্না।

এ বিষয়ে জসিম উদ্দিনের স্ত্রী হাছিনা আক্তার স্বপ্না বলেন, তার শ্বাশুড়ি ডায়বেটিসের রোগী। প্রতিদিন সকাল বেলা হাটতে বাহির হয়। ঘরের দরজা খোলা দেখে নাস্তা নিয়ে ঘরে যাই। প্রথমে ভাবছিলাম তিনি হাটতে গেছেন। পরে তার রুমে গিয়ে দেখি মুখে বালিশ চাপা দেয়া। মুখ থেকে বালিশ সরালে লাগায় জবাই করা অবস্থা দেখতে পেয়ে চিৎকার করে জ্ঞান হারিয়ে পেলি। আমার শাশুড়ির কোন শত্রু ছিলো না। তিনি এ হত্যাকান্ডের বিচারের দাবি জানান।

এ বিষয়ে নিহতের মেজো মেয়ে শাহেনা বেগমের স্বামী শাহ আলম বলেন, সকাল বেলা স্বপ্না ফোন করে বলেন কে বা কাহার তার শাশুড়ির গলায় চুরি মেরে হত্যা করে। এ কথা শুনার পর দ্রুত শশুর বাড়িতে এসে দেখি ঘরের আলমিরা ভাঙা। খাটের ওপর তার লাশ পড়ে রয়েছে। আমার শাশুড়ি একা থাকেন এ ঘরে। তার ছেলের বৌরা কেউ বাপের বাড়িতে থাকেন আর কেই বিদেশ থাকেন। ডাকাত বা চোরেরা তাকে হত্যা করে স্বর্ণ, টাকা ও মোবাইল ফোন নিয়ে যায়।

মাস্টার অহিদুর রহমান বলেন, জবা বেগম আমার বড় ভাইয়ের বৌ। তার কোন শত্রু নেই। সকাল বেলা দেখি তাকে জবাই করে হত্যা করা হয়েছে। পাশাপাশি তার থাকার রুমের আলমিরা ভাঙা।

এ বিষয়ে নাঙ্গলকোট থানার ওসি (তদন্ত) মো. রকিবুল ইসলাম বলেন, হত্যাকান্ডের খবর পেয়ে পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে যায়। এবং এ ঘটনাটি রহস্য উদঘাটনের জন্য (সিআইডি) পুলিশের ক্রাইম সিন ঘটনাস্থলে আসেন। তদন্তের করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত আজকের অর্থনীতি ২০১৯।

কারিগরি সহযোগিতায়:
x