শুক্রবার, ১২ অগাস্ট ২০২২, ১২:২৩ পূর্বাহ্ন

কুষ্টিয়া পৌর কাউন্সিলর শাহিন উদ্দিনের লক্ষ্য একটাই ১৪ নং ওয়ার্ডের উন্নয়ন

Reporter Name
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ১০ নভেম্বর, ২০২০

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় গত সাড়ে ৪ বছরে কুষ্টিয়া পৌরসভার সকল ওয়ার্ডসহ ১৪নং ওয়ার্ডেও উন্নয়ন কাজ হয়েছে। কাউন্সিলর শাহিন উদ্দিন প্রতিবেদককে বলেন ১৪নং ওয়ার্ডের সার্বিক উন্নয়নই আমার লক্ষ্য। ‘জনপ্রতিনিধিরা জনগণের সেবক। জনগণের সেবা করার জন্য ২০১৫ সালের ৩০শে ডিসেম্বর কুষ্টিয়া পৌরসভার নির্বাচনের মাধ্যমে জনগণ আমাকে কাউন্সিলর হিসেবে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করেছেন। সেই থেকে আমি কুষ্টিয়া পৌরসভার ১৪নং ওয়ার্ডের উন্নয়নের কাজ করে যাচ্ছি। জনগণের চাহিদা পূরণ করতে পারাই জনপ্রতিনিধির মূল কাজ। সেই লক্ষ্য নিয়েই ওয়ার্ডের সার্বিক উন্নয়নে পরিকল্পনার মাধ্যমে ওয়ার্ডবাসীর জন্য কাজ করে যাচ্ছি।
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শকে বুকে ধারণ করে আগামীতেও জনগণের সেবক হিসেবে কাজ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন শাহিন উদ্দিন। সেবার মানসিকতা আছে বলেই পুরো ওয়ার্ড জুড়ে উন্নয়ন মূলক কাজ করেছি। আমি কি করেছি তা জনগনই বলবে। আমি উন্নয়নে বিশ্বাসী। আমি জনপ্রতিনিধি হয়েও জনগণের জবাবদিহিতায় আওতায় আসতে চাই। তাহলে আরও উন্নয়ন হবে আমার এই ওয়ার্ডে। আপনারা আমাকে কাউন্সিলর হিসেবে নির্বাচিত করে আপনাদের সেবা করার সুযোগ দিয়ে আসছেন। তার জন্য আমি আমার প্রাণ প্রিয় ১৪নং ওয়ার্ড বাসীকে অন্তরের অন্তস্থল থেকে আন্তরিকভাবে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করছি।
তিনি এক পথসভায় ওয়ার্ডবাসীর উদ্দেশ্যে বলেন, আমাদের দেশসহ পুরো বিশ্ব আজ করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) এর সংক্রমণের কারনে গভীর সংকটের সম্মুখীন, আশা করি এই সংকট অচিরেই দূর হয়ে যাবে ইনশাল্লাহ। করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে সরকার শুরু থেকেই খুবই আন্তরিক এবং সতর্ক অবস্থায় আছে। আপনাদের সবাইকে সরকারের নির্দেশনা মেনে চলার জন্য অনুরোধ করছি, সরকারের পাশাপাশি জনগণকে এ ব্যাপারে সচেতন হতে হবে। কোন প্রকার গুজবে কান না দিয়ে সরকারের নির্দেশনা মেনে চলুন।
মনে রাখবেন এই দেশটা আমাদের সকলের। আমার ১৪ নং ওয়ার্ডের করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী ও তার পরিবারের পাশে আছি এবং থাকবো। যে কোন প্রয়োজনে আমাকে আপনাদের পাশে পাবেন। একজন কাউন্সিলর হিসেবে নয় এই এলাকার ছেলে ও আপনাদের সেবক হিসেবে কাজ করে যেতে চাই। আতংকিত নয়, সচেতন থাকুন, ঘুরাঘুরি না করে নিজের ঘরে থাকুন। জনসমাগম এড়িয়ে চলুন, মুখে মাক্স বাধ্যতামূলক করুন, পরিবার ও সাধারন মানুষদের সুরক্ষিত রাখুন।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত আজকের অর্থনীতি ২০১৯।

কারিগরি সহযোগিতায়:
x