শনিবার, ১৩ অগাস্ট ২০২২, ০২:৫৩ অপরাহ্ন

খালেদা জিয়া আইসিইউতে, দেশবাসির কাছে দোয়া কামনা

Reporter Name
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ২৫ অক্টোবর, ২০২১

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার একটি ছোট অপারেশনের পর আইসিইউতে রাখা হয়েছে। গতকাল সোমবার এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এই বিষয়ে বিএনপির পক্ষ থেকে গণমাধ্যমকে অবহিত করা হয়। গতকাল বিকেলে গুলশানে বিএনপির চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান খালেদা জিয়ার ব্যক্তিগত চিকিৎসক ডা. জাহিদ হোসেন।

খালেদা জিয়ার বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে জানাতে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সংবাদ সম্মেলন থেকে জানানো হয়, খালেদা জিয়ার একটি মাইনর অপারেশন হয়েছে। শারীরিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার পর চিকিৎসকরা দেখেছেন। একটি বায়োপসি করা দরকার। ছোট লাম্প আছে এক জায়গায়। অপারেশনের পর বেগম জিয়া সুস্থ আছেন।

ডা. জাহিদ হোসেন জানান, বায়োপসি করার পরিপ্রেক্ষিতে রেজাল্ট পেতে সময় লাগে। ৭২ ঘণ্টাও লাগতে পারে। আবার এ ধরনের অপারেশনের পর কখনো ১৫-২১ দিনও সময় লাগে। আজই বলা যাবে না।

তিনি বলেন, ডেডিকেটেড হাসপাতালে তার চিকিৎসার প্রয়োজন আছে। আপনারা সবাই তার জন্য দোয়া করবেন। তিনি দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন। তিনি যেন দ্রুত সুস্থ হয়ে ওঠেন। দেশের বাইরে যেন তার চিকিৎসা নিশ্চিত করা যায়, সেক্ষেত্রে সবাই যথাযথ ভূমিকা পালন করবেন।

গত ১২ অক্টোবর জ্বর আসায় খালেদা জিয়াকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে তিনি এভার কেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। এর আগে করোনাভাইরাসসহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়ে টানা ৫৪ দিন একই হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন খালেদা জিয়া।

উন্নত চিকিৎসা:

সংবাদ সম্মেলন থেকে বেগম জিয়ার উন্নত চিকিৎসার জন্য সরকারের দৃষ্টি আকর্ষন করা। জানানো হয় উন্নত চিকিৎসার জন্য খালেদা জিয়াকে বিদেশে নেওয়ার বিষয়ে মেডিকেল বোর্ড পরামর্শ দিয়েছে। বিভিন্ন পুরনো রোগ থাকায় তার মাল্টি অ্যাডভান্সড সেন্টারে চিকিৎসা প্রয়োজন।

অপারেশনের পর খালেদা জিয়া কেমন আছেন এই বিষয় জানতে চাইলে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল বলেন- ম্যাডাম এখন বিদপমুক্ত। তিনি ভালো আছেন।

সংবাদ সম্মেলন থেকে বলা হয়, খালেদা জিয়ার মুক্তিতে আইনগত বাধা নেই। কেন তিনি জামিন পাবেন না? জামিন তার প্রাপ্য, এটা অধিকার, দয়া নয়। জামিন পাওয়া তার অধিকার। অবিলম্বে তাকে বিদেশে যাওয়ার সুযোগ দেওয়া দরকার।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন খালেদা জিয়ার চিকিৎসক দলের সদস্য ডা. আল মামুন, চেয়ারপারসনের মিডিয়া উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান ও শামসুদ্দিন দিদার।

খালেদা জিয়ার অপারেশনের আগে তাকে দেখতে হাসপাতালে যান বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, পুত্রবধূ সৈয়দা শর্মিলা রহমান সিথি, তার ব্যক্তিগত চিকিৎসক ডা. জাহিদ হোসেন ও ডা. আল মামুন।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত আজকের অর্থনীতি ২০১৯।

কারিগরি সহযোগিতায়:
x