শনিবার, ০১ অক্টোবর ২০২২, ০৭:৫৮ পূর্বাহ্ন

জ্বালানীর মুল্যবৃদ্ধিতে দ্রব্যমুল্য লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে : ডাঃ ইরান

Reporter Name
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ১৫ নভেম্বর, ২০২১

ডিজেল, কেরোসিন-গ্যাসের বর্ধিতমুল্য প্রত্যাহারের দাবী জানিয়ে লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডাঃ মোস্তাফিজুর রহমান ইরান বলেন, জনস্বার্থকে উপেক্ষা করে জ্বালানী তেল, গ্যাসের দামবৃদ্ধিতে দ্রব্যমুল্য লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। এতে সীমাহীন জনদুর্ভোগ সৃষ্টি হয়েছে জনমনে বিরূপ প্রভাব প্রড়েছে। সরকারের দুর্নীতি, লুটপাট ও অর্থপাচারের খেসারত দিচ্ছে সাধারন মানুষ।

দেশে ধনী-গরীবের বৈসাম্য প্রকট আকার ধারন করেছে। লুটেরা শ্রেনী ধনী থেকে আরো ধনী হচ্ছে আর শ্রমজীবী মেহনতি মানুষ সর্বহারা শ্রেনীতে পরিনত হয়েছে। তাই অবিলম্বে ডিজেল, কেরোসিন ও গ্যাসের দাম বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করতে হবে। তা না হলে জনদুর্ভোগে গণবিস্ফোরন তৈরী হবে। জ্বালানীর মূল্য বাড়ায় জনজীবনে মূল্যস্ফীতির চাপ বৃদ্ধির পাশাপশি সেচ পরিবহনসহ সামগ্রিক ব্যয় অসহনীয়ভাবে বেড়েগেছে। জনজীবনে দুর্গতি আরেক ধাপ বেড়েগেছে। জিনিসপত্রের দাম বৃদ্ধির কারনে অর্থনীতিতে নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে এবং মধ্যবিত্ত ও নিম্ন আয়ের মানুষ ভয়ানক দুর্ভোগে মানবেতর জীবনযাপন করেছে।

তিনি আজ (সোমবার) দুপুরে তেল-গ্যাসের মুল্যবৃদ্ধি ও পরিবহনের বর্ধিত ভাড়া প্রত্যাহারের দাবীতে বাংলাদেশ লেবার পার্টি ঢাকা মহানগর শাখার বিক্ষোভ মিছিল শেষে সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন।

ডাঃ ইরান বলেন, ভারতে জ্বালানি তেলের দাম কমেছে অথচ বাংলাদেশে দাম দ্বিগুন করা হয়েছে, যাতে ক্ষমতাসীনরা জনগণের টাকা লুটপাট করে বিদেশে পাচার করতে পারে। ভোটারবিহীন সরকারের জনগণের কাছে জবাবদিহি করতে হয়না বলেই জনমতকে উপেক্ষা করে ডিজেল, কেরোসিন ও এলপি গ্যাসের মুল্য অস্বাভাবিক হারে বৃদ্ধি করা হয়েছে। এমনিতেই বর্তমানে চাল, ডাল, আটা, চিনি, ভোজ্য তেল ও রান্নার গ্যাসের দাম দ্বিগুন বৃদ্ধিতে স্বল্প আয়ের মানুষের জীবন এখন সোচনীয় অবস্থা। তারা সংসার চালাতে হিমশিম খাচ্ছে।

নগর সভাপতি মাওলানা আনোয়ার হোসেনের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন লেবার পার্টির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব লায়ন ফারুক রহমান, বীরমুক্তিযোদ্ধা শহিদুল ইসলাম চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান মোসলেম উদ্দিন, হিন্দুরত্ম রামকৃষ্ণ সাহা, যুগ্ম-মহাসচিব হুমাউন কবীর, আবদুর রহমান খোকন, মহিলা সম্পাদিকা নাসিমা নাজনিন সরকার, প্রচার সম্পাদক মনির হোসেন, কেন্দ্রীয় সদস্য মাওলানা জাকির হোসেন, যুবমিশন আহবায়ক ইমরুল কায়েস, ছাত্রমিশন সভাপতি সৈয়দ মোঃ মিলন ও ছাত্রমিশন সাধারন সম্পাদক শরিফুল ইসলাম, পাঠাগার সম্পাদক মামুনুর রশীদ, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক সাব্বির হোসেন প্রমুখ।

মিছিলটি সেগুনবাগিচা থেকে শুরু হয়ে বিজয়নগর, পুরানা পল্টন, বায়তুল মোকারম, সচিবালয় হয়ে প্রেসক্লাবে গিয়ে সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়।
সমাবেশ থেকে জ্বালানীর বর্ধিতমুল্য প্রত্যাহারের দাবীতে আগামী ২৬ নভেম্বর শুক্রবার বিকাল ৩ থেকে ৫টা পর্যন্ত প্রতিকি অনশনের কর্মসুচীর ঘোষনা করা হয়। প্রেস বিজ্ঞপ্তি

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত আজকের অর্থনীতি ২০১৯।

কারিগরি সহযোগিতায়: