শুক্রবার, ১২ অগাস্ট ২০২২, ১২:৪২ অপরাহ্ন

ডিজিটাল জনশুমারির জন্য কেনা হবে ৪ লাখ ট্যাব

Reporter Name
  • আপডেট টাইম : বুধবার, ২৭ অক্টোবর, ২০২১

ডিজিটাল পদ্ধতিতে জনশুমারির চিন্তা করছে পরিসংখ্যান ব্যুরো। যার জন্য চার লাখ ট্যাব কেনার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে।

চলতি বছরের মধ্যেই শুমারি শুরুর আইনি বাধ্যবাধকতা রয়েছে। এ জন্য প্রথমে গত ২ থেকে ৮ জানুয়ারি জনশুমারি করার কথা ছিল, যা করোনার কারণে পিছিয়ে যায়। পরে তা চলতি মাসের ২৫ থেকে ৩১ অক্টোবর করার সিদ্ধান্ত হয়। এ শুমারির অন্যতম উপাদান ট্যাব (ট্যাবলেট পিসি) কিনতে বিলম্ব হওয়ায় তা শুরু করা যায়নি। ট্যাব কেনার প্রস্তাব অনুমোদন ও প্রধানমন্ত্রীর সায় পেলে ২৪ থেকে ৩০ ডিসেম্বর শুমারি সপ্তাহ ধরে জনগণনা করা হবে।

আগে জনশুমারির নাম ছিল আদমশুমারি। ২০১৩ সালে জাতীয় সংসদে পাস হওয়া ‘পরিসংখ্যান আইন, ২০১৩’ অনুযায়ী ‘আদমশুমারি ও গৃহগণনা’র নাম পরিবর্তন করে ‘জনশুমারি ও গৃহগণনা’ করা হয়।

জনশুমারি করা হবে ডিজিটাল পদ্ধতিতে যার জন্য চার লাখ ট্যাব কেনার প্রস্তাবনা দেওয়া হয়েছে মন্ত্রিসভায়। এরআগে একই প্রস্তাব প্রথম দফায় ফিরিয়ে দেওয়া হয়। পরে আজ বুধবার আবার তা ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটিতে উঠানো হচ্ছে। এবার অনুমোদন পেলে ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহে জনসংখ্যার গণনা শুরু হবে।

বছরের শুরুতে জনশুমারি হওয়ার কথা থাকলেও করোনার কারণে তা পিছিয়ে যায়। এরপর ডিজিটাল এ শুমারির জন্য ৪ লাখ ট্যাব কেনার প্রস্তাব সরকারি ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটিতে উঠলে কমিটি ত্রুটির কারণে তা ফেরত পাঠায়। ফলে আরেক দফা পেছায় জনশুমারি।

জনশুমার পরিচালনকারী সংস্থা বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো বলছে, ডিজিটাল এ শুমারি শুরু নির্ভর করছে ট্যাব হাতে পাওয়ার পর। তবে, এরই মধ্যে ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহে শুমারি চালানোর প্রস্তাব অনুমোদনদের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে পাঠানো হয়েছে।

দেশের ষষ্ঠ এ শুমারির পুরো প্রক্রিয়াটি হবে ডিজিটাল পদ্ধতিতে। এ জন্য ৩ লাখ ৯৫ হাজার ট্যাব সংগ্রহ করা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত আজকের অর্থনীতি ২০১৯।

কারিগরি সহযোগিতায়:
x