রবিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ০৮:১২ পূর্বাহ্ন

ত্রিশালে নৌকা মনোনীত প্রার্থীরা বারবার পরাজিত হচ্ছে

ইমরান হাসান বুলবুল, ত্রিশাল (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি
  • আপডেট টাইম : বুধবার ২৭ অক্টোবর, ২০২১
  • ৮০

ময়মনসিংহের ত্রিশাল উপজেলায় আগামী ২৮ নভেম্বর অনুষ্ঠেয় ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে ঘিরে সরগরম উপজেলার প্রত্যন্ত এলাকা। তবে ভোটের দিন যতই এগিয়ে আসছে, জনমনে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা ততই বাড়ছে। কারণ হিসাবে বলা যায় আওয়ামীলীগের জেলা ও উপজেলার গ্রুপ রাজনীতির রোষানলে নৌকা মনোনীত প্রার্থীরা বারবার পরাজিত হয়। কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের স্বীদ্ধান্তকে বৃদ্ধাঙ্গুল দেখিয়ে গ্রুপ রাজনীতি অবলম্বন করে বিরোধী দলের প্রার্থীকে জয় লাভ করতে কার্পন করেন না হেভী ওয়েড পারসন এই সমস্ত জেলা বা উপজেলার নেতারা।কোন কোন সময় কেন্দ্রীয় নেতারাও মদদ যোগান ত্রিশাল উপজেলার গ্রুপ রাজনীতির ইন্দন যোগাতে।

বিরোধী দল বিএনপি নির্বাচনে প্রার্থী না দিলেও আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা মার্কার প্রার্থীরা সুবিধাজনক স্থানে, এমনটি বলা যাচ্ছে না। কারণ বেশির ভাগ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে স্বতন্ত্র হিসেবে প্রার্থী হয়েছেন আওয়ামী লীগেরই লোকজন। এই বিদ্রোহী প্রার্থীরা নৌকার জন্য দুশ্চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছেন। কোথাও কোথাও নৌকার প্রার্থীরা কোণঠাসা হয়ে পড়েছেন।

নির্বাচন অফিস সূত্র জানায়, ত্রিশাল উপজেলার ১২টি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে প্রায় ৫০ জন প্রার্থী মাঠে প্রচার-প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। প্রার্থীরা এখন পথসভা, গণসংযোগ, মতবিনিময়সহ ভোটারদের দরজায় ভোট প্রার্থনা করছেন। তবে প্রতিটি ইউনিয়নে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নৌকার বিপক্ষে একাধিক বিদ্রোহী প্রার্থী লড়াই করছেন। ফলে অনেক ইউনিয়নে নৌকার বিজয় নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছে। পরিস্থিতি সামাল দিতে জেলা আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে বিদ্রোহীদের নম্র -ভদ্র সতর্কবার্তা দিলেও খুব বেশি কাজে আসেনি। বরং অনেক স্থানে বিদ্রোহীদের চাপে প্রচার-প্রচারণায় গতি আনতে পারছেন না সরকারি দলের প্রার্থীরা।

সবেজমিন ঘুরে জানা গেছে, বিদ্রোহী প্রার্থীদের কাউকে কাউকে ময়মনসিংহ জেলা ও ত্রিশাল উপজেলার আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী নেতারা সমর্থন দিচ্ছেন। এতে সংঘর্ষ-সহিংসতা বাড়ার আশঙ্কা করছেন ভোটাররা।

এব্যাপারে জানতে চাইলে ত্রিশাল রিপোর্টাস ক্লাবের সভাপতি সাংবাদিক কামাল হোসেন জানান, ত্রিশালে দীর্ঘদিন আওয়ামীলীগের কমিটি না থাকায় গ্রুপ রাজনীতি রোষানলে নৌকার মনোনীতরা বারবার পরাজিত হয়। ত্রিশাল নৌকা প্রতীক জয় যুক্ত করতে আওয়ামীলীগকে বিদ্রোহী প্রার্থী ঠেকাতে কার্যকরী পদক্ষেপ নিতে হবে।

বাংলাদেশ সাংবাদিক সমিতি ত্রিশাল উপজেলার সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক আতিকুল ইসলাম আতিক জানান, ত্রিশালে গ্রুপ রাজনীতি কল্যাণের চেয়ে দলের জন্যে ক্ষতিই বেশি করছে। যার ফলসূতিতে আমরা গত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে অথবা পৌরসভা নির্বাচনে আমরা নৌকার প্রার্থীকে পরাজিত হতে দেখেছি। যা আওয়ামীপ্রিয় ত্রিশালবাসীকে হতাশ করেছে।

সদ্য ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকার প্রাপ্ত একাধিক প্রার্থীরা জানান, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের নৌকা, জননেত্রী বিশ্বনেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নৌকা দল আমাদের উপহার দিয়েছে আমরা আমাদের সর্বোচ্চ শ্রম মেধা দিয়ে চেস্টা করছি নৌকাকে বিজয়ী করতে। ত্রিশালে নৌকা বিজয়ের প্রধান অন্তরায় হলো গ্রুপ রাজনীতি । কেন্দ্রীয় ভাবে জেলার মাধ্যমে গ্রুপ রাজনীতির লাগাম যদি সঠিক ভাবে টেনে ধরা যায় তবে প্রতিটি ইউনিয়ন থেকেই নৌকা বিপুল ভোটের বিজয় লাভ করবে।

নিউজটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর..