বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ০৮:০৬ অপরাহ্ন

বিংশ শতাব্দর আধুনিক বাংলা সাহিত্যাঙ্গনে ধমকেতুর ন্যায় ক্ষনজন্মা যে কবির আবির্ভাব

Reporter Name
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ১৮ অক্টোবর, ২০২০

বিংশ শতাব্দীতে বহুমুখী প্রতিভা নিয়ে আধুনিক বাংলা সাহিত্যাঙ্গনে ধুমকেতুর ন্যায় যার আবির্ভাব। তিনি হলেন
মোহাম্মাদ আকরামুল ইসলাম। ১৯৭৭সালের ৩১ শে ডিসেম্বর সিলেট জেলার কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার পূর্ণাছগাম গামে এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্ম গ্রহন করেন। তাঁর পিতার নাম স্যার আব্দুল মতিন (স্কুল প্রধান শিক্ষক), মাতার নাম মিসেস মেহেরাজুন নেছা(গৃহিনী)।

তিনি শিক্ষা জীবনে রাজা জি সি হাই স্কুল থেকে কৃতিত্বের সহিত প্রবেশিকা পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে দক্ষিন সুরমা সরকারি কলেজে ইন্টারমিডিয়েট এবং সিলেট সরকারি কলেজ – বিএ (স্নাতক) ডিগ্রি লাভ করেন। অতঃপর জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে সিলেট এম সি কলেজ এম এ (বাংলা -ইসলামের ইতিহাস) এবং সিলেট ল কলেজ -এল এল বি প্রিলিমিনারী সম্পন্ন করেন। তিনি একটি বেসরকারি হাই- স্কুলে প্রধান শিক্ষক হিসেবে কর্ম জীবন শুরু করেন। শিক্ষকতার পাশাপাশি তিনি বাংলা সাহিত্য সাধনায় ব্রতী হন।

উল্লেখ্য যে শৈশব থেকেই তার কবি হওয়ার তীব্র বাসনা ছিলো। তিনি মনে করে ছিলেন বাড়ি ত্যাগ না করলে কবি হওয়া যাবে না, শহরে গেলে সুবিধা হবে। এই আশা আকাঙ্খায় তিনি ভবঘুরের মতই সিলেট শহর বা শহর তলির বিভিন্ন জায়গায় অবস্থান করে সাহিত্য সাধনায় আত্মনিয়োগ প্রেক্ষিতে ব্যাপক অধ্যাবসায় অধ্যায়ন নিরলস ভাবে চালিয়ে যান। তিনি বিচিত্র বিষয়ের ওপর কবিতা, ছড়া,গল্প, প্রবন্ধ, ভ্রমণ কাহিনি ও রম্য কথা ইত্যাদি আপন স্বভাবে তিনি ক্রমাগত লিখে চলেছেন।

তার প্রথম কাব্য গ্রন্থের নাম নান্দনিক সূর্য্যেদয়, তিনি কবি হিসেবে স্বীকৃতি স্বরূপ ইতি মধ্যে বেসরকারি ভাবে অসংখ্য পুরষ্কার ও কবি মাহি উপাধিতে ভূষিত হন।তিনি বর্তমান সময়ে একনিষ্ঠ ভাবে বাংলা সাহিত্য চর্চার সঙ্গে সঙ্গে সাইক্লোন (মাসিক ম্যাগাজিন)সম্পাদনার দায়িত্ব পালন করছেন।তিনি ইতিপূর্বে ক্লাব ম্যাগাজিনের সহকারী সম্পাদক হিসেবে প্রায় ২ বছর দায়িত্ব পালন করেন। তিনি সকলের নিকট দোয়া প্রার্থী যেন ভবিষ্যতে সবার দোয়ায় উনি আরো ভালো কিছু উপহার দিতে পারেন দেশ তথা সমাজের মানুষকে।

দোয়া কামনায় স্নেহাশিস ভাতিজা

ইবাদুর রহমান রোমেল,
সিনিয়র সহকারি শিক্ষক (ফুলকুঁড়ি আইডিয়াল স্কুল)।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত আজকের অর্থনীতি ২০১৯।

কারিগরি সহযোগিতায়: