বুধবার, ১৭ অগাস্ট ২০২২, ০৬:৪৬ অপরাহ্ন

ভূ-গর্ভস্থ অবৈধ বালুর ব্যবসা

Reporter Name
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ২৩ জানুয়ারী, ২০২২

ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুর উপজেলার দোড়া ইউনিয়নে পাচলিয়া বকুল পার্ক সংলগ্ন ড্রেজার মেশিন লাগিয়ে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন করছে ভাদু মল্লিক এর ছেলে শফি উদ্দিন। আর তাদের এই অবৈধ বালু উত্তোলনের শেল্টার দেন ঝিনাইদহের প্রভাবশালী ঠিকাদার আসাদ। কৃষি জমি এবং প্রাকৃতিক পরিবেশের ভারসাম্য ধ্বংস করছে এই অবৈধ বালু উত্তোলন সিন্ডিকেট।

তৎক্ষনাৎ কোটচাঁদপুর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা জনাব, দেলোয়ার হোসেনকে অবহিত করলে তিনি খুবই দ্রুত স্পটে হাজির হন, নির্বাহী কর্মকর্তার গাড়ি ঢুকতে সবাই পালিয়ে যায়। নির্বাহী কর্মকর্তার উপস্থিতিতে থেকেই বন্ধ করেন অবৈধ বালু উত্তোলনের ড্রেজারের পাইপ।

এভাবেই চলছে অবৈধ বালির ব্যবসা। অথচ বাংলাদেশের ভূ-গর্ভস্থ বা নদীর তলদেশ হইতে বালু বা মাটি উত্তোলন সংক্রান্ত বিশেষ বিধানে বলা হয়েছেঃ

(১) পাম্প বা ড্রেজিং বা অন্য কোন মাধ্যমে ভূ-গর্ভস্থ বালু বা মাটি উত্তোলন করা যাইবে না।
(২) নদীর তলদেশ হইতে বালু বা মাটি উত্তোলনের ক্ষেত্রে যথাযথ ঢাল সংরক্ষণ সাপেক্ষে, সুইং করিয়া নদীর তলদেশ সুষম স্তরে (River Bed Uniform Level) খনন করা যায় এইরূপ ড্রেজার ব্যবহার করতঃ বিধি দ্বারা নির্ধারিত পদ্ধতিতে ড্রেজিং কার্যক্রম পরিচালনা করিতে হইবে।
(৩) উপ-ধারা (২) এর অধীন ড্রেজিং কার্যক্রমে বাল্কহেড বা প্রচলিত বলগেট ড্রেজার ব্যবহার করা যাইবে না।

অর্থনৈতিকভাবে বর্ধনশীল দেশ হিসেবে বাংলাদেশে বালু উত্তোলন উল্লেখযোগ্য হারে বাড়ছে। শিল্পায়ন ও নতুন অবকাঠামো নির্মাণে বালু অপরিহার্য। ক্রমবর্ধমান জনসংখ্যা বিবেচনায় এই হার ভবিষ্যতে আরও বাড়বে। জাতিসংঘের হিসাবমতে, ২০৫০ সাল নাগাদ আরও ২৫০ কোটি মানুষ নগরবাসী হবে। ফলে অবকাঠামো ও নতুন নির্মাণ চাহিদা বাড়ায় বালুর চাহিদাও বাড়বে। তাই প্রাকৃতিক পরিবেশ রক্ষায় এখন থেকেই এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত আজকের অর্থনীতি ২০১৯।

কারিগরি সহযোগিতায়:
x