রবিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ০৭:১৮ পূর্বাহ্ন

মাধবপুরে ঐহিত্যবাহী লাঠি খেলা অনুষ্ঠিত 

নাহিদ মিয়া, মাধবপুর (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি:
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার ২৫ নভেম্বর, ২০২১
  • ৩৫

কিছুটা সময়ের জন্য প্রাচীন গ্রাম বাংলার লাঠি খেলা ফিরে যেতে পেরে উচ্ছ্বসিত হয়ে ওঠেন স্থানীয়রাহ হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার নোয়াগাঁও গ্রামের লাঠি খেলা অনুষ্ঠিত হয়ে গেল মনোমুগ্ধকর লাঠি খেলা। গ্রামবাংলার ঐতিহ্যবাহী লাঠি খেলার আয়োজনকে ঘিরে স্থানীয়দের মাঝে ছিল উৎসবের আমেজ।

আজ বৃহস্পতিবার (২৫ নভেম্বর) উপজেলার নোয়াগাঁও গ্রামের আরজো মাস্টারের চারা বাড়ীর মাঠে লাঠি খেলা অনুষ্ঠিত হয়। ঐতিহ্যবাহী এই প্রাচীন খেলাকালের ক্রমে হারিয়ে যাওয়া লাঠি খেলা দেখতে ভিড় করে নানা বয়সের মানুষ। গ্রাম- বাংলা এ ঐতিহ্যবাহী লাঠি খেলাকে টিকিয়ে রাখতে দরকার প্রয়োজনীয় পৃষ্ঠপোষকতা এমনটাই মনে করেন দর্শনার্থীরা।

বৃহস্পতিবার দুপুর থেকেই কেউ হেঁটে আবার কেউবা অটোরিকশা কিংবা মোটরসাইকেলে বৃহস্পতিবার মাধবপুর পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ড নোয়াগাঁও গ্রামের আরজো মাষ্টারের চারা বাড়ীর মাঠে আসতে শুরু করেন। সুর্য পশ্চিম দিগন্তে একটু হেলে পড়তেই শুরু হয় খেলা।ঢাক, ঢোল আর কাঁসার ঘন্টার শব্দে চারপাশ উৎসব মুখর পরিবেশের সৃষ্টি হয়। বাদ্যের তালে নেচে নেচে লাঠি খেলে অঙ্গভঙ্গি প্রদর্শন করে লাঠিয়ালরা। তারপরই চলে লাঠির কসরত। প্রতিপক্ষের লাঠির আঘাত থেকে নিজেকে রক্ষা ও তাকে আঘাত করতে ঝাঁপিয়ে পড়েন লাঠিয়ালরা। এসব দৃশ্য দেখে আগত দর্শকরাও করতালির মাধ্যমে উৎসাহ যোগায় খেলোয়াড়দের। হারিয়ে যাওয়া এই ঐতিহ্য বাঁচিয়ে রাখতে সরকারি পৃষ্ঠপোষকতার মাধ্যমে নিয়মিত এই ধরনের আয়োজন করার দাবি করেন দর্শকরা।

সমাজ থেকে অন্যায় অপরাধ দুর করতে আর হারানো ঐতিহ্য ধরে রাখতেই এই লাঠি খেলা পরিচালনা ও আয়োজন করেন নোয়াগাঁও গ্রামবাসিরা হলেন খুশিদ মিয়া, আব্দুল লালী, সেলিম মিয়া, কালা মিয়া, আজিজ মিয়া, আবু তালেব, আইয়ুব আলী খেলায় উপস্থিত ছিলেন।দুপুর থেকে সন্ধ্যা অবধি চলা লাঠিখেলায় উপজেলার বিভিন্ন গ্রামের ৬টি লাঠিয়াল বাহিনী অংশগ্রহণ করে।

 

নিউজটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর..