রবিবার, ১৪ অগাস্ট ২০২২, ১২:১৩ অপরাহ্ন

মিজানুর রহমানের মনোনয়ন পত্র দাখিল উপলক্ষ্যে মিলাদ মাহফিলে জনতার ঢল

Reporter Name
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ২ নভেম্বর, ২০২১

আসন্ন কোদালপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে চেয়ারম্যান প্রার্থী মনোনয়ন পত্র দাখিল করাকে কেন্দ্র করে মিলাদ ও দোয়ার আয়োজন করা হয়। সোমবার ০১ নভেম্বর বিকেলে কোদালপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এসএম মিজানুর রহমান সরদার তার নিজ বাড়িতে আবারও কোদালপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হিসেবে প্রার্থী থাকার ঘোষণা করেন এবং তার বন্ধু বান্দব আত্মীয় স্বজন। পাড়া প্রতিবেশির অংশ গ্রহনের মাধ্যমে এই মিলাদ দোয়া ও আলোচনা সভা করেন।

এসময়ে বিভিন্ন ওয়ার্ড থেকে মহিলা সদস্য প্রার্থী সহ এবং সকল শ্রেণী পেশার মহিলা পুরুষ আনন্দ মুখোর পরিবেশে দোয়ায় অংশ করে জন সমুদ্রে পরিনত হয়।

আলোচনায় সমর্থিত বক্তব্য রাখেন বীর মুক্তিযুদ্বা ও স্থানীয় বাসিন্দাদের পক্ষ হতে মুরুব্বিগন সকলেই আগামী কোদালপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে এস এম মিজানুর রহমান সরদার কে ২৮ শে নভেম্বরে বিপুল ভোটে বিজয়ী করার একাত্মতা প্রকাশ করেন।

তারা জানান মিজানুর রহমান সরদার সরকারের সকল ধরনের সহায়তা সঠিক ভাবে প্রদান করে জনগনের আস্থা যুগিয়েছেন। সুবিধা বঞ্চিত হয়নি গরীব দুখী মানুষরা। তিনি বেশ সুনামের সহিত দায়ীত্ব পালন করে আসছেন। তার বিরুদ্ধে কোন দুর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগ নেই। তাই তাকে ভোট দিয়ে পুনরায় নির্বাচিত করে যোগ্য পাত্রে অন্ন দান করবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন একাধিক ভোটাররা।

এবং কোদালপুর ইউনিয়ন বাসীর বিশ্বাস এস এম মিজানুর রহমান আবারও চেয়ারম্যান হলে ইউনিয়ন কে একটি ডিজিটাল ইউনিয়ন গড়ার লক্ষ্যে এবং উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখার জন্য তাকে ভোট প্রদান করে বিজয় করার অঙ্গিকার করে জোট বেধেছে অধিকাংশ ভোটাররা। তিনি নির্বাচিত হলে এলাকায় মসজিদ,মাদ্রাসা, রাস্তা,ঘাট,শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানের ব্যপক উন্নয়ন হবে।

এছাড়াও মাদক, সন্ত্রাস জঙ্গিবাদ মুক্ত হবে। গরীব দুখী মানুষের শেষ আশ্রয়স্থল অক্ষুন্ন থাকবে। আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে ঘিরে তাকে নিয়ে পুনরায় ভাবতে শুরু করেছে ভোটাররা। তাকে ছাড়া অন্য কোন প্রার্থীকে ভাবতে পারছেনা ভোটাররা। চায়ের দোকান, হাট-বাজারসহ বিভিন্ন স্থানে প্রতিদিন তার গুনকীর্তন করছে জনগন। তাকে পুনরায় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচিত করার লক্ষ্যে ভোটাররা ইতিমধ্যে বিভিন্ন জল্পনা কল্পনা শুরু করেছে।

তিনি বর্তমানে এলাকায় ধর্মীয় অনুষ্ঠান,শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসহ সকল ধরনের সামাজিক কর্মকান্ডে অংশগ্রহন করে যাচ্ছে এবং এলাকায় প্রতিটি উন্নয়ন মুলক কাজে তার অবদান রয়েছে। এছারাও তিনি এলাকায় মাদক, সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ ,বাল্যবিবাহসহ সকল অপরাধমুলক বিষয়ে প্রতিবাদী ব্যাক্তি নামে সুপরিচিত হয়েছেন।

অসহায় মানুষরা তাকে ডাক দিলেই হাতের নাগালে পান। করোকালীন সময়ে তিনি গরীব দুখী মানুষের পাশে থেকে বিভিন্ন সময় সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়ে মানবতার ফেরীওয়ালা উপাধী পেয়েছেন। একাধিক ভোটাররা জানান তিনি সৎ, মার্জিত, শিক্ষিত, ভদ্র স্বভাবী,প্রতিবাদী হওয়ায় এলাকার উন্নয়নের স্বার্থে তার বিকল্প নেই।তিনি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হিসেবে পুনরায় নির্বাচিত হলে সরকারের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত থাকবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত আজকের অর্থনীতি ২০১৯।

কারিগরি সহযোগিতায়:
x