শনিবার, ০১ অক্টোবর ২০২২, ০৮:৩২ পূর্বাহ্ন

মুক্তিযোদ্ধা সন্তান আলতাফ হোসেন নৌকা প্রত্যাশী

Reporter Name
  • আপডেট টাইম : শনিবার, ২০ নভেম্বর, ২০২১

আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দিঘলী ইউনিয়ন থেকে নৌকা পেতে নিরলসভাবে কাজ করছেন মুক্তিযোদ্ধা আবু ছায়েদ খাঁনের সন্তান আলতাফ হোসেন। আলতাফ হোসেনের নিজস্ব ভবনে দিঘলী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কার্যালয় অবস্থিত। নামমাত্র ভাড়ায় উক্ত কার্যালয় থেকে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ এবং অংগ সংগঠন সমূহের কার্যক্রম পরিচালিত হয়ে থাকে।

এছাড়াও সংগঠনের সকল জাতীয় ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যেকোনো অনুষ্ঠানে তিনি সর্বাত্মক আর্থিক সহযোগিতা করে থাকেন। করোনা মহামারির সময়ে তিনি প্রায় দুই সহস্রাধিক পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেন। ঈদ এবং বিভিন্ন উৎসবে তিনি নেতা কর্মীদের সাথে আনন্দ ভাগাভাগি করে নেওয়ার জন্য পোষাক ও নগদ অর্থ বিতরণ করেছেন।

ভূমিহীন অসহায় ও দুস্থ মানুষদের মৃত্যু পরবর্তী দাপনের জন্য ৪ কাঠা এবং দিঘলী চৌরাস্তা জামে মসজিদ এর জন্য পারিবারিকভাবে ৪ কাঠা জমি দান করেন। দিঘলী ইউনিয়ন এর যুবকদের মাদক, ইয়াবা এবং অপকর্ম থেকে বিরত রাখতে তিনি নিয়মিত ফুটবল, ক্রিকেট এবং বেড মিন্টন খেলার সামগ্রী বিতরণ করে আসছেন।যা তরুণ ও যুবকদের মানসিক বিকাশে অসামান্য অবদান রাখছে।

দিঘলী গ্রামের সন্তান আলতাফ হোসেন এর পুরো পরিবার আওয়ামী রাজনীতির সাথে জড়িত। তাঁর পিতা মুক্তিযোদ্ধা আবু ছায়েদ খাঁন দিঘলী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি এবং চাচা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মোজাম্মেল হক খাঁন কালুরঘাট জুট মিলসের সভাপতি ছিলেন। বড় ভাই জাকির হোসেন খাঁন দিঘলী ইউনিয়ন কৃষক লীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন ।

তাঁর শ্বশুর মুক্তিযোদ্ধা রবিউল হোসেন চাটখিল পৌর সভা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি এবং স্ত্রী জেসমিন আক্তার জুসি বাংলাদেশ ছাত্রলীগ চাটখিল কলেজ এর সাবেক মহিলা সম্পাদক। ছাত্রজীবন থেকেই তিনি আওয়ামী রাজনীতির সাথে জড়িত ছিলেন।

১৯৯২ সালে দিঘলী উচ্চ বিদ্যালয়ের সাধারণ সম্পাদক এবং ১৯৯৪ সালে একই বিদ্যালয়ের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৯৬ সালে দিঘলী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক এবং ১৯৯৯ সালে উক্ত ইউনিয়ন এর সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ২০০১ সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন প্রাপ্ত মরহুম কাজী ইকবাল এবং ২০০৮ সালে এম এ হাসেম এর নৌকা মার্কার পক্ষে এর দিঘলী ইউনিয়ন নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সমন্বয়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ২০০৫ সালে জেদ্দা সৌদি আরব শ্রমিকলীগের সাধারণ সম্পাদক, ২০০৭ সালে জেদ্দা সৌদি আরব যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক এবং ২০১২ সালে জেদ্দা সৌদি আরব আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ২০১৮ সালে তিনি দিঘলী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কমিটিতে সদস্য পদ লাভ করেন।

সামাজিক ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের সাথে তার রয়েছে সখ্যতা। দিঘলী চৌরাস্তা জামে মসজিদ এর সভাপতি, চন্দ্রগঞ্জ থানা আইন শৃঙ্খলা কমিটির সদস্য, দিঘলী ইউনিয়ন ব্লাড ব্যাংকের উপদেষ্টা হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

এছাড়াও ঢাকাস্থ চন্দ্রগঞ্জ থানা সমিতি এবং ঢাকাস্থ চন্দ্রগঞ্জ থানা জনকল্যাণ সমিতির আজীবন সদস্য। সামাজিক, পারিবারিক এবং অর্থনৈতিক অবস্থান বিবেচনা করলে দিঘলী ইউনিয়নে আলতাফ হোসেন এর বিকল্প নেই।

আলতাফ হোসেন মনোনয়ন এর ব্যাপারে বলেন, জননেত্রী, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভিশন ২০৪১ এবং ডিজিটাল দিঘলী ইউনিয়ন গড়ার লক্ষ্যে আমি দীর্ঘদিন ধরে কাজ করে আসছি।আশাকরি প্রধানমন্ত্রী আমাকে নৌকার যোগ্য প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন দিবেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত আজকের অর্থনীতি ২০১৯।

কারিগরি সহযোগিতায়: