বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর ২০২০, ১২:৪১ পূর্বাহ্ন

রূপপুরের জন্য রাশিয়া থেকে দেশের পথে ৪টি স্টিম জেনারেটর

অর্থনীতি ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : ১ অক্টোবর, ২০২০
  • ২৮ বার পঠিত

পাবনার রূপপুরে নির্মাণাধীন পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের জন্য রাশিয়া থেকে আরো একটি স্টিম জেনারেটর (বাষ্পচালিত জেনারেটর) আসছে। এরই মধ্যে সেটি জাহাজে তোলা হয়েছে। এ নিয়ে রূপপুরের জন্য মোট চারটি স্টিম জেনারেটর দেশের উদ্দেশে রওনা হলো।

রাশিয়ার এইম টেকনোলোজির ভলগোদনস্ক শাখা থেকে (রোসাটমের যন্ত্র উৎপাদনকারী শাখা- জেএসসি অটো মেনারগোম্যাশ) জেনারেটরটি পাঠানো হচ্ছে। ১৪ হাজার কিলোমিটার সমুদ্রপথ পাড়ি দিয়ে আগামী বছরের শুরুতে যন্ত্রাংশগুলো দেশে এসে পৌঁছবে বলে আশা করা হচ্ছে।

আজ বৃহস্পতিবার রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় পারমাণবিক শক্তি কমিশন (রোসাটম) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, দুই মাস আগে রিয়্যাক্টর ভেসেলসহ (পারমাণবিক চুল্লি) এর প্রথম অংশ বাংলাদেশে পৌঁছেছে। আরো দুটি স্টিম জেনারেটর সেপ্টেম্বর মাসে রাশিয়া থেকে জাহাজে রওনা হয়েছে। মোট চারটি স্টিম জেনারেটরের শেষেরটিকে কারখানা থেকে স্থানান্তর করে অন্য তিনটি অংশের সঙ্গে জাহাজে তোলা হয়েছে। যার মোট ওজন প্রায় এক হাজার টন। এরপর যন্ত্রাংশগুলো নভোরোসিস্কে নিয়ে যাওয়া হবে, সেখান থেকে এগুলো ১৪ হাজার কিলোমিটার সমুদ্রপথ পাড়ি দিয়ে বাংলাদেশে এসে পৌঁছবে।

এর মাধ্যমে রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের প্রথম ইউনিটের রিয়্যাক্টর অবকাঠামোর সবগুলো সরঞ্জামের জাহাজীকরণ শেষ হলো।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, স্টিম জেনারেটরগুলোর প্রতিটির ব্যাস ৪ মিটার, দৈঘ্য প্রায় ১৪ মিটার এবং ওজন ৩৪০ টন। এটি সমান্তরাল সিলিন্ডার আকৃতির পাত্র এবং এর দুটি উপবৃত্তাকার মাথা রয়েছে। এর দুটি হেডার থাকে যা স্টিম জেনারেটরগুলোকে ঠাণ্ডা রাখতে সহায়তা করে। স্টিম জেনারেটরের নিচের অংশে ১১ হাজার স্টেইনলেস টিউবের (প্রায় ১৩০ কিলোমিটার) তৈরি একটি হিট এক্সচেঞ্জ তল রয়েছে।

রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের নকশা ও নির্মাণ রাশিয়ান পরিকল্পনা অনুযায়ী বাস্তবায়ন হচ্ছে। এর দুইটি ইউনিটের প্রত্যেকটির উৎপাদন সক্ষমতা ১ হাজার ২০০ মেগাওয়াট, অর্থাৎ এ বিদ্যুৎকেন্দ্রের মোট উৎপাদন সক্ষমতা হবে ২ হাজার ৪০০ মেগাওয়াট। রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রে সর্বাধুনিক থ্রি-প্লাস প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর..