মঙ্গলবার, ১৬ অগাস্ট ২০২২, ০৪:৪৭ পূর্বাহ্ন

সম্রাটের অভিযোগপত্র গ্রহণ শুনানি পেছাল, মুক্তির দাবিতে সমর্থকরা

Reporter Name
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ২৫ অক্টোবর, ২০২১

অসুস্থতার কারণে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের বহিষ্কৃত সভাপতি ইসমাইল চৌধুরী সম্রাটকে আদালতে হাজির করতে পারেনি কারা কর্তৃপক্ষ। এ কারণে অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) করা মামলায় সম্রাটের অভিযোগপত্র গ্রহণ শুনানির দিন পিছিয়ে ১০ জানুয়ারি ধার্য করেছেন আদালত।

সোমবার (২৫ অক্টোবর) ঢাকার সিনিয়র স্পেশাল জজ কেএম ইমরুল কায়েশের আদালত এ আদেশ দেন।

আদালতের সংশ্লিষ্ট দুদক শাখার সাধারণ নিবন্ধন কর্মকর্তা আমিনুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

গত ২২ সেপ্টেম্বর মামলাটির অভিযোগপত্র গ্রহণের দিন ধার্য ছিল। কিন্তু ওইদিন সম্রাটকে কারাগার থেকে আদালতে হাজির না করায় অভিযোগপত্র গ্রহণের শুনানি হয়নি। পরে বিচারক আজ (২৫ অক্টোবর) সম্রাটকে কারাগার থেকে আদালতে হাজির করার (প্রোডাকশন ওয়ারেন্ট) নির্দেশ দেন।

মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, যুবলীগের বহিষ্কৃত নেতা ইসমাইল চৌধুরী সম্রাটের বিরুদ্ধে দুই কোটি ৯৪ লাখ ৮০ হাজার ৮৭ টাকার জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগ আনা হয়েছে। এ ঘটনায় ২০১৯ সালের ১২ নভেম্বর বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন দুদক উপ-পরিচালক মো. জাহাঙ্গীর আলম। এরপর দীর্ঘ তদন্ত শেষে গত বছরের ২৬ নভেম্বর মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মো. জাহাঙ্গীর আলম আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

যুবলীগের ঢাকা মহানগর দক্ষিণের বহিষ্কৃত সভাপতি ‘ক্যাসিনো সম্রাট’ খ্যাত ইসমাইল হোসেন চৌধুরী সম্রাটকে আদালতে হাজির করা হয়েছে। মঙ্গলবার (২০ অক্টোবর) সকাল ১০টায় তাকে আদালতে হাজির করা হয়। এরপর তাকে আদালতের হাজতখানায় রাখা হয়। এদিন সম্রাটের বিরুদ্ধে মাদক ও অস্ত্র মামলায় চার্জশিট আমলে গ্রহণ করবেন ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েশ। সংশ্লিষ্ট আদালতের অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর তাপস কুমার পাল এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এদিকে, আদালতের হাজতখানার দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা পুলিশের উপপরিদর্শক নৃপেন রায় জানান, সকাল থেকে আদালত প্রাঙ্গণে সম্রাটের মুক্তির দাবিতে বিভিন্ন ধরনের স্লোগান দিচ্ছেন নেতাকর্মী ও সমর্থকরা।

সম্রাটের মুক্তির দাবিতে আদালত প্রাঙ্গণে সমর্থকরা:

গত ৯ ডিসেম্বর মাদক মামলায় সম্রাট ও আরমানের বিরুদ্ধে চার্জশিট জমা দেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা র‌্যাব-১ এর এসআই আবদুল হালিম।

প্রসঙ্গত, গত বছরের ৬ অক্টোবর ভোরে কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম থেকে সম্রাট ও তার সহযোগী এনামুল হক আরমানকে গ্রেফতার করে র‌্যাব। পরে তাকে নিয়ে দুপুর দেড়টার দিকে তার কাকরাইলের কার্যালয়ে অভিযান চালানো হয়। এ সময় ভেতর থেকে বিপুল পরিমাণ বিদেশি মদ ও পিস্তল উদ্ধার করা হয়। ওই ঘটনায় ৭ অক্টোবর র‌্যাব-১-এর ডিএডি আব্দুল খালেক বাদী হয়ে রমনা থানায় দুটি মামলা দায়ের করেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত আজকের অর্থনীতি ২০১৯।

কারিগরি সহযোগিতায়:
x