রবিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ০৮:০২ পূর্বাহ্ন

সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখুন: কুষ্টিয়ার এসপি

ডা: হাবিব, কুষ্টিয়া প্রতিনিধি
  • আপডেট টাইম : শুক্রবার ২২ অক্টোবর, ২০২১
  • ৭০

বুধবার (২০ অক্টোবর) রাত সাড়ে ১১টায় মিরপুর থানাধীন মালিহাদ দাসপাড়া গ্রামের জনৈক নরেশ কুমার দাস ইসলাম ধর্মকে অবমাননা করে সোশাল মিডিয়ায় একটি পোস্ট করে এবং ২১ অক্টোবর সকাল অনুমান সাড়ে ৯ টার মধ্যে পোস্টটি ডিলিট করে দেয়। মুহূর্তে পোস্টটি ভাইরাল হলে এ নিয়ে মালিহাদ এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা বিরাজ করে।

পুলিশ সুপার কুষ্টিয়া মো. খাইরুল আলমের নির্দেশনা মোতাবেক সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মো. আজমল হোসেন, অফিসার ইনচার্জ মিরপুর থানা, গোলাম মোস্তফাসহ মিরপুর থানা পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে এবং খবর পাওয়ার এক ঘন্টার মধ্যে ফেসবুকে পোস্ট দেওয়া ১ নম্বর আসামি নরেশ কুমার দাস এবং ২ নম্বর আসামি রিপন দাস, দুজনেক গ্রেপ্তার করেন।

আজ শুক্রবার (২২ অক্টোবর) সকাল সাড়ে ১০ টায় পুলিশ সুপার কুষ্টিয়া মো. খাইরুল আলম মিরপুর মালিহাদ (দাসপাড়া) এবং ১১ টায় চুয়াডাঙ্গা জেলার আলমডাঙ্গা থানার হারদী ইউনিয়নের প্রাকপুর বাজার পরিদর্শন করেন। এসময় তিনি সবাইকে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখার অনুরোধ করেন।

পুলিশ সুপার কুষ্টিয়া মো. খাইরুল আলম প্রথমে আসামি নরেশ কুমার এর বাড়িতে যান এবং নরেশ কুমারের বাড়ির আশপাশের হিন্দুধর্মের লোকজনদের সাথে কথা বলে তাদের নিরাপত্তার বিষয়টি নিশ্চিত করার জন্য মিরপুর সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার ও অফিসার ইন চার্জকে নির্দেশনা প্রদান করেন।

পুলিশ সুপার পরবর্তীতে মালিহাদ বাজারের সকল দোকানদারসহ স্থানীয় গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গের সাথে মতবিনিময় করেন এবং
ইসলাম ধর্মকে অবমাননা করে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট দানকারী নরেশ কুমার দাসের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের আশ্বাস প্রদান করেন।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার প্রশাসন ও অপরাধ, মোঃ আজমল হোসেন, সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মিরপুর সার্কেল, উপজেলা নির্বাহী অফিসার, মিরপুর, অফিসার ইনচার্জ গোলাম মোস্তফা, কুষ্টিয়া জেলার ডিবি পুলিশের সদস্যবৃন্দ, মিপুর থানার অফিসার – ফোর্স এবং স্থানীয় চেয়ারম্যান, মেম্বর, মালিহাদ বাজার কমিটির সদস্য প্রমুখ।

নিউজটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর..