বৃহস্পতিবার, ১১ অগাস্ট ২০২২, ১০:৫২ অপরাহ্ন

১০০ টাকা বাঁচাতে রোদে জ্বলছে আলমগীর

Reporter Name
  • আপডেট টাইম : বুধবার, ১৩ অক্টোবর, ২০২১

দুই বছর আগে আলমগীর বেতন পেতেন ২০ হাজার টাকা। করোনার এই সময়েও একই বেতন দিয়ে ৫ জনের সংসার টানছেন। বেতন না বাড়লেও প্রতিদিন বাড়তে থাকা দ্রব্যমূল্য এখন প্রায় দুই তিনগুন বেড়েছে। কাউকে কিছু বলতে না পারা আলমগীর বেঁচে থাকতে, পরিবারকে বাঁচাতে তাই অর্থ বাঁচাতে চেষ্টা করছেন। বাসা থেকে ৮ কিলোমিটার হেটে যান অফিসে। আর বাড়তে থাকা সয়াবিন তেলের ১০০ টাকা বাঁচাতে রাস্তায় দাঁড়িয়ে পড়লেন ফকিরাপুল এলাকায় টিসিবির ট্রাকের পণ্যের জন্য লাইনে। কড়া রোদ ও ভ্যাপসা গরমের মধ্যে এক ঘণ্টার মতো দাঁড়িয়ে কিনলেন দুই লিটার তেল, পেঁয়াজ, চিনি ও ডাল।
গতকাল মঙ্গলবার (১২ অক্টোবর) দুপুরে আক্ষেপ প্রকাশ করে আলমগীর হোসেন বলেন, আমি যে চাকরি করি তাতে চলে না। খরচ অনেক বাড়লে বেতন বাড়ে নাই।

শুধু আলমগীর নয়, বাজারে তেল-পেঁয়া‌জের লাগামহীন দা‌মের কার‌ণে নিম্ন ও মধ্য আ‌য়ের হাজা‌রো মানুষ এখন ‌টি‌সি‌বির প‌ণ্যের জন্য অ‌পেক্ষায় থা‌কেন।

টিসিবির ভ্রাম্যমাণ ট্রাক সেলে ন্যায্যমূল্যে সয়াবিন তেল প্রতি লিটার ১০০ টাকা, চিনি ও ডাল প্রতিকেজি ৫৫ টাকা এবং পেঁয়াজ প্রতিকেজি ৩০ টাকায় বিক্রি হয়।

এমন অবস্থা শুধু আলমগীরের নয়। কথা হয় অন্য একজনের সঙ্গে। তিনি আজকের অর্থনীতিকে বলেন, বাজারে তেল-পেঁয়াজের দাম বেড়ে যাওয়ায় এখন পণ্যের অনেক চাহিদা। সব জায়গায়ই মানুষের লাইন। এক সময় পণ্য নিয়ে বসে থাকতে হতো। এখন যত পণ্যই আনি, তিন চার ঘণ্টার মধ্যে শেষ হয়ে যায়। এরপরও অনেকে পণ্য পায় না। আজকে ৪০০ লিটার তেল পাইছি। তার মানে ২০০ জন নিতে পারবে। এর বেশি দেওয়া সম্ভব না।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত আজকের অর্থনীতি ২০১৯।

কারিগরি সহযোগিতায়:
x