সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ০৪:২৪ পূর্বাহ্ন

কুষ্টিয়ায় চেয়ারম্যনের মাদক সেবন, জনগণের মুখে মুখে 

অর্থনীতি ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ৩০ নভেম্বর, ২০২১
  • ৫১

নিউজটি শেয়ার করুন

কুষ্টিয়া সদর উপজেলার একটি ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতার ফেনসিডিল সেবনের একাধিক ভিডিও ফাঁস হয়েছে। স্থানীয় লোকজনের মুঠোফোনে সেই ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে।ওই ভিডিওতে মাদক সেবন করতে সদর উপজেলার পাটিকাবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সফর উদ্দীনকে দেখা গেছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারা।
তিনি পাটিকাবাড়ী ইউনিয়নের পাটিকাবাড়ী গ্রামের বাসিন্দা ও একই ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ২০১১ সাল থেকে টানা দুবার আওয়ামী লীগ নেতা সফর আলী চেয়ারম্যান পদে আছেন। এবারও দলীয় মনোনয়ন পেতে স্থানীয় ইউনিয়ন কমিটি থেকে তাঁর নাম প্রস্তাব করা হয়েছে। দেশে চতুর্থ ধাপের ইউপি নির্বাচনে ৫ জানুয়ারি ২০২২ এই ইউনিয়নে ভোট গ্রহণ করা হবে।২৯ শে নভেম্বর ২০২১ সোমবার সকালে দলীয় মনোনয়ন নিতে সফর আলী ঢাকায় গেছেন। এরই মধ্যে কয়েক দিনে পাটিকাবাড়ীসহ আশপাশের কয়েকটি গ্রামের মানুষের মুঠোফোনে চেয়ারম্যানের ফেনসিডিল সেবনের একাধিক ভিডিও ক্লিপ ছড়িয়ে পড়েছে।
১ মিনিট ৪ সেকেন্ড ও ১ মিনিট ৩৫ সেকেন্ডের দুটি ভিডিও ক্লিপে দেখা যায়, সফর উদ্দীন ইউনিয়ন পরিষদে তাঁর কক্ষে বসে ফেনসিডিল সেবন করছেন। আবার কক্ষের সঙ্গে লাগোয়া টয়লেটে গিয়েও মাদক সেবন করেন। ভিডিওর দৃশ্য দেখে শীতকাল মনে হয়। তবে কবে, কখন ভিডিও দুটি করা হয়েছে, তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।নাম প্রকাশ না করার শর্তে পাটিকাবাড়ী গ্রামের এক তরুণ বলেন, চেয়ারম্যান বিভিন্ন সভা সমাবেশে মাদকের বিরুদ্ধে কথা বলেন। অথচ তিনি নিজেই মাদক সেবন করছেন। প্রশাসনের কাছে অনুরোধ, দ্রুত তাঁর বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হোক।পাটিকাবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য ইব্রাহীম খান বলেন, ‘যেটা দেখলাম, এটা যদি সত্যি হয়, তবে খুবই খারাপ কাজ করেছেন।
সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রেজাউল ইসলাম বলেন, দলীয় সভায় বিষয়টি তুলে ধরা হবে। সর্বসম্মতিক্রমে যে সিদ্ধান্ত হবে, সেই মোতাবেক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।যদি এ ধরনের ঘটনা ঘটে থাকে, অবশ্যই তাঁর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া উচিত বলে মন্তব্য করেছেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসগর আলী। তিনি আরও বলেন,মাদকের বিরুদ্ধে আমাদের সরকার জিরো টলারেন্সে। সমাজটাকে এই মাদক নষ্ট করছে। অফিসে বসে মাদক সেবন এটা কাম্য নয়। আওয়ামী লীগের বদনাম হবে, এটা বরদাশত করা হবে না। দলীয়ভাবে অবশ্যই এর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।এ বিষয়ে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে ইউপি চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতা সফর উদ্দীন দাবি করেন,এটা কীভাবে কারা বানিয়েছে, তা জানা নাই। আমি দেখি নাই, শুনছি। আমাকে কয়েকজন ফোন করে জানিয়েছে।
এ জাতীয় আরো খবর..

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত আজকের অর্থনীতি ২০১৯।

কারিগরি সহযোগিতায়:
x