শুক্রবার, ০১ মার্চ ২০২৪, ১২:২৭ পূর্বাহ্ন

ওলামায়ে কেরামের নেতৃত্বে দুর্নীতিমুক্ত উন্নত কল্যাণ রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা সম্ভব

অর্থনীতি ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারী, ২০২২

নিউজটি শেয়ার করুন

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের নায়েবে আমীর মুফতী সৈয়দ মুহাম্মদ ফয়জুল করীম শায়খে চরমোনাই বলেছেন, জাহেলী সমাজ পরিবর্তন করে ইসলামী সমাজ গঠনের দায়িত্ব নিয়ে ওলামােেদরকে কাজ করতে হবে। ওলামায়ে কেরামের নেতৃত্ব প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে দেশকে দুর্নীতিমুক্ত উন্নত কল্যাণ রাষ্ট্রে পরিণত করতে হবে। তিনি বলেন, যতদিন তাকওয়ার উপর প্রতিষ্ঠিত থাকবো, ততদিন আমাদেরকে কেউ পরাজিত করতে পারবে না। লোভ লালসা পরিহার করে একমাত্র দীন প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে ওলামায়ে কেরামকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। তিনি বলেন, ওলামায়ে কেরাম এক হলে ইসলামী হুকুমত প্রতিষ্ঠা করতে বেশি সময় লাগবে না। তিনি বলেন, তাগুতি শক্তির সহযোগি না হয়ে দীন প্রতিষ্ঠার জন্য ওলামায়ে কেরামকে এগিয়ে আসতে হবে। সর্বত্র ওলাময়ে কেরামের নেতৃত্ব প্রতিষ্ঠা করতে হবে।

আজ মঙ্গলবার সকাল ১১টা থেকে পুরানা পল্টনস্থ আইএবি মিলনায়তনে জাতীয় ওলামা মাশায়েখ আইম্মা পরিষদ ঢাকা মহানগর উত্তরের উদ্যোগে নগর ও থানা দায়িত্বশীল তরবিয়াতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন ইসলামী আন্দোলনের মহাসচিব অধ্যক্ষ হাফেজ মাওলানা ইউনুছ আহমাদ, বিশিষ্ট ইসলামী চিন্তাবিদ আল্লামা মুফতি মিজানুর রহমান সাঈদ, মুফতি কেফায়েতুল্লাহ কাশফী। সংগঠনের ঢাকা মহানগর উত্তর সভাপতি মুফতি হেমায়েতুল্লাহর সভাপতিত্বে এবং সাংগঠনিক সম্পাদক মুফতি ফরিদুল ইসলামের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত তারবিয়াতে অন্যন্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মুফতি মোহাম্মাদুল্লাহ আনসারী, মুফতি শামসুদ্দোহা আশরাফী, মুফতি মূর্তজা কাসেমী, মুফতি মাহমুদ জাকীর, মুফতি আবুল কালাম আজাদ আনোয়ারী, মুফতি ওসমান আশরাফী, মুফতি আব্দুল আজিজ কাসেমী, মুফতি শাব্বির আহমদ, মুফতি মোহাম্মদুল্লাহ নাহীদ প্রমুখ।

মুফতী ফয়জুল করীম বলেন, কিছু করার আগে লক্ষ্য ঠিক করে নিতে হবে। লক্ষ্য ঠিক না করলে গন্তব্যস্থানে পৌঁছা সম্ভব হবে না। ওলামায়ে কেরামকে এদিক-ওদিক ছুটোছুটি না করে লক্ষ্য নির্ধারণ করে কাজ করতে হবে। তবেই দেশে ইসলামী শাসন কায়েম সম্ভব হবে।
তিনি বলেন, ইসলামী তাহজীব-তামাদ্দুন ধ্বংস করে বিজাতীয় সংস্কৃতি প্রসারে কাজ চলছে। সিলেবাস থেকে ইসলামী শিক্ষা কৌশলে তুলে দেয়ার নীল নকশা চলছে। এ জন্য এসএসসি ও এইচএসসিতে ইসলামী শিক্ষা বিষয়ে কোন পরীক্ষা হবে না। এটাকে ঐচ্ছিক হিসেবে রাখ হয়েছে। ৯২ ভাগ মুসলমানের দেশে ইসলাম নিয়ে এধরণের নোংরামীর কোন মানে হয় না। তিনি সিলেবাসে ইসলামী শিক্ষা বিষয়ে পরীক্ষা নিতে কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানান।

মুফতি ফয়জুল করীম বলেন, ওলামা মাশায়েখ আইম্মা পরিষদ সারাদেশে একটি স্রোত তৈরি করছে। প্রতিনিয়ত এখানে দেশের শীর্ষ আলেমগণ যোগ দিচ্ছেন। তিনি বলেন, আমাদেরকে একামত্র মহান রাব্বুল আলামিনের সন্তুষ্টি অর্জনের লক্ষ্যে কাজ করতে হবে।

এ জাতীয় আরো খবর..

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত আজকের অর্থনীতি ২০১৯।

কারিগরি সহযোগিতায়:
x