মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ০৪:০৬ অপরাহ্ন

ভারতে মহানবীর (সা.) অবমাননায় বিরোধী দলীয় নেতার নিন্দা

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ১২ জুন, ২০২২

নিউজটি শেয়ার করুন

ভারতে মহানবী (সা.) এর অবমাননার ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন বিরোধী দলীয় নেতা রওশন এরশাদ এমপি। আজ রবিবার এক বিবৃতিতে তিনি এই নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান। বিবৃতিতে বিরোধী দলীয় নেতা বলেন, বিশ্বের মুসলিমদের নেতা আমাদের নবী হজরত মুহাম্মদ (সা.)। প্রিয় নবীর বিরুদ্ধে ভারতের কিছু রাজনৈতিক নেতার দেওয়া দুঃখজনক ও দুর্ভাগ্যজনক বিবৃতির নিন্দা জানাই। ওই বিবৃতি আমাদের হৃদয়, মন ও আত্মাকে গভীরভাবে আঘাত করছে।
বিরোধী দলীয় বলেন, বিশ্বব্যাপী সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি ও শান্তি বজায় রাখার জন্য এধরনের বিবৃতি আমরা আশা করিনা। ইসলাম শান্তি ও সম্প্রীতির ধর্ম এবং সব সময় সকল ধর্মকে সম্মান করে থাকে।

হৃদপিন্ডে আরো দুইটি ব্লকসহ নানা জটিলতার কারণে খালেদা জিয়াকে ৭২ ঘন্টার নিবিড় পর্যবেক্ষনে রেখেছে এভার কেয়ার হাসপাতালের মেডিকেল বোর্ড। রোববার দুপুরে বিএনপি চেয়ারপারসনের ব্যক্তিগত চিকিতসক অধ্যাপক এজেডএম জাহিদ হোসেন এই কথা জানান।

তিনি বলেন, ‘‘ গতকাল ম্যাডামের হার্টে এনজিওগ্রাম করার পর তিনটা ব্লক পাওয়া যায়। একটা ব্লক মেইন গ্রেট ভ্যাসেল যেটা লেফট সাইডে এর মধ্যে মোর দ্যা ৯৫% ব্লক ছিলো। যার কারণে উনার হার্ট অ্যাটাক হয়েছে… এনজিও গ্রামে ওখানে সাথে সাথে স্টেন্টিং করা হয়েছে।”

‘‘ এখন উনি সিসিইউতে কার্ডিওলস্টিদের নিবিড় পর্যবেক্ষেনে আছে। এখন পর্যন্ত উনার শারীরিকভাবে যে অবস্থায় আছেন ডাক্তারদের বক্তব্য হলো যে, ৭২ ঘন্টা না গেলে প্রসিজিউরের পরবর্তিতে কোনো কমেন্ট করা সঠিক হবে না। সেজন্য উনা্রা কোনো মন্তব্য করা থেকে বিরত রয়েছেন।”

বাকী দুইটি ব্লক সম্পর্কে অধ্যাপক জাহিদ বলেন, ‘‘ বাকী দুইটি ব্লক উনার শরীরিক অবস্থা পর্যবেক্ষন করে পরবর্তিতে করা হবে। কারণ উনার ক্রনিক কিডনি ডিজিজ আছে, ক্রনিক লিভার ডিজিস আছে, এক্ষেত্রে যে সব ঔষধ উনি ইউজ করেন সেক্ষেত্রে কিডনির ক্ষতিগ্রস্থতার পরিমান বেড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। সেজন্য আরো দুইটা ব্লক অপসারণের কাজটি বাকী রাখা হয়েছে।”

‘‘ নানা দিক বিবেচনা করে মেডিকেল বোর্ড ক্রিটিক্যালি যেটা বেশি উনাকে বেশি শারীরিকভাবে কষ্ট দিচ্ছে সেটাতে স্টেন্টিং করেছে।একিউট ইমার্জন্সি যেটা হয়েছিলো সেটার থেকে ওভারকাম করার জন্য গতকালকে একটা করা হয়েছে।”

তিনি বলেন, ‘‘ রোগীর চিকিতসার ব্যাপারে ডাক্তাররা সার্বক্ষনিকভাবে নজর রাখছেন। টাইম টু টাইম উনার স্বাস্থ্যের প্রতি উনারা নজর রাখছেন।”

‘‘ ম্যাডামের পরিবারসহ কাউকে উনারা এলাউ করছেন না। আমরা নিজেরাও সেখানে বেশি যাতায়াত করছি না। বাইর থেকে যতটুকু সহযোগিতা করার করছি।”

অধ্যাপক জাহিদ জানান, বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার পরিবার আশু আরোগ্য কামনায় দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন।

গতকাল দুপুরে বসুন্ধরার এভার কেয়ার হাসপাতালে খালেদা জিয়ার হৃদপিন্ডে একটি ব্লক অপসারণ করে সেখানে স্টেন্টিং করা হয়েছে।

গত শুক্রবার গভীর রাতে গুলশানে বাসা ‘ফিরোজা’য় হঠাত বুকে ব্যথা অনুভব করলে দ্রুত বসুন্ধরা এভার কেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয় খালেদা জিয়াকে।

হাসপাতালের বিশেষজ্ঞ চিকিতসক অধ্যাপক শাহাবুদ্দিন তালুকদারের নেতৃত্বে ১৯ সদস্যের মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়।

এ জাতীয় আরো খবর..

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত আজকের অর্থনীতি ২০১৯।

কারিগরি সহযোগিতায়:
x