শুক্রবার, ৩১ মে ২০২৪, ০১:২৭ পূর্বাহ্ন

সাহস থাকলে নিরপেক্ষ নির্বাচন দেন, প্রধানমন্ত্রীকে মোস্তফা মহসীন মন্টু

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ২৯ আগস্ট, ২০২২

নিউজটি শেয়ার করুন

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উদ্দেশ্য করে গণফোরামের একাংশে সভাপতি মোস্তফা মহসীন মন্টু বলেছেন, যদি আপনার সাহস থাকে আপনি একটা নিরপেক্ষ নির্বাচন দেন। জনগণ সিদ্ধান্ত নিবে এ নির্বাচনে কারা জিতবে। জণগণের প্রতি আপনার ভরসা নেই ? আবারও ২০১৪ আর ২০১৮ সালের নির্বাচনে ফিরে আসতে চান। সেটা আর হবে না। ও-ই দিন শেষ। এখন মানুষ প্রস্তুত। যতই অত্যাচার করেন না কেনো মানুষ কিন্তু রুখে দাঁড়াবে। আপনি জানেন না আন্দোলন কোন জায়গা থেকে শুরু হবে।

গণফোরামের ২৯তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে সোমবার বিকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

মোস্তফা মহসীন মন্টু বলেন, এখন সময় এসেছে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার। একবার যদি ঐক্যবদ্ধ হয়ে আমরা শেষ চেষ্টা করতে পারি ইনশাআল্লাহ জয় আমাদের হবে।

তিনি বলেন, আমরা ঐক্যবদ্ধভাবে একটা অবাধ সুষ্ঠু নিরপেক্ষ নির্বাচন চাই। সেটা নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে হতে হবে। আমরা ডাক দিয়ে যাই, সমস্ত রাজনৈতিক দল এবং দেশের সমস্ত মানুষকে। আসুন নিজেদের ভেদাভেদ, অনৈক্য ভুলে বাংলাদেশের মানুষের দাবি নিরপেক্ষ নির্বাচনে প্রত্যাশা পূরন করি।

মোস্তফা মহসীন মন্টু বলেন, মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ভূলুণ্ঠিত করা হচ্ছে। এখন আমাদের দেশে যে অবস্থা চলছে মুক্তিযুদ্ধের কথা বলে জোর করে ক্ষমতায় টিকে থাকার পায়তারা। একই সঙ্গে জাতিকে দ্বিধা বিভক্ত করা হচ্ছে। কিন্তু মুক্তিযুদ্ধের উদ্দেশ্য ছিলো জাতি ঐক্যবদ্ধ করা। সমস্ত জাতি একতাবদ্ধ হয়ে দেশ গড়বে।

‘দুঃশাসন হটিয়ে জনগণের শাসন প্রতিষ্ঠায় অঙ্গীকারবদ্ধ গণফোরাম’ শীর্ষক আলোচনা সভার শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন দলটি সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভেকেট সুব্রত চৌধুরী।

তিনি বলেন, আমাদের অনেক ভুলভ্রান্তি হয়েছে। অনেক নেতৃবৃন্দ আমাদের সঙ্গে পথ চলতে পারে নাই। মাঝ পথে তারা ফিরে গেছে। তাদের ক্ষমতায় যাওয়ার যে স্বপ্ন বিলাস ছিলো তা পূরন হয় নাই। আমরাও সে হাটি নাই।

আমরা মনে করি, দীর্ঘ ২৯ বছরের আমাদের যে লড়াই সংগ্রাম করেছি একটা সুষ্ঠু ধারার রাজনীতি, একটি মানবিক বাংলাদেশ, মুক্তিযুদ্ধের আদর্শের বাংলাদেশ, গণতান্ত্রিক বাংলাদেশ গড়ার যে স্বপ্নকে নিয়ে আবার নতুন করে আমতা পথ চলতে চাই। আমরা মনে করি আগামী দিনে আমাদের পথ খুঁজে পাবো।

ইভিএম পদ্ধতি প্রসঙ্গে গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি অধ্যাপক ড. আবু সাইয়িদ বলেন, ২০১৪ সালে এই আওয়ামী লীগ ১৫৪ টা আসন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নিশ্চিত করেছিলো। এবার তারা ইভিএম মেশিনের সাহায্যে ১৫০ আসন নিশ্চিত করতে চায়।৷ আমরা ইভিএম চাই না। আমাদের জনগণ সীল চায়। এই একক রাষ্ট্রে একদিনেই নির্বাচন, ৩০০ আসন একই সময়ে শুরু হবে। এক রাষ্ট্রে একই পদ্ধতি একই নিয়ম হতে হবে। একই ব্যবস্থা করতে হবে।

আলোচনা সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, গণফোরামের প্রেসিডিয়াম সদস্য মহিউদ্দিন আবদুল কাদের, খান সিদ্দিকুর রহমান। লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির (এলডিপি) মহাসচিব ড. রেদোয়ান আহমেদ, বাংলাদেশ পিপলস পার্টির- বিপিপি চেয়ারম্যান বাবুল সরদার চাখারী। আমার বাংলাদেশ -এবি পার্টির সদস্যসচিব মুজিবুর রহমান মঞ্জু।

এ জাতীয় আরো খবর..

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত আজকের অর্থনীতি ২০১৯।

কারিগরি সহযোগিতায়:
x