শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ১০:৪৭ পূর্বাহ্ন

নিষেধাজ্ঞার কারণে আওয়ামী নেতারা নিজেদেরকে সাধু দেখানোর নাটকে ব্যাস্ত

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ২৯ মে, ২০২৩

নিউজটি শেয়ার করুন

বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স বলেছেন, প্রতিনিয়ত বিএনপিসহ বিরোধী দলের ওপর ফ্যাসিবাদী কায়দয় আক্রমণ করে এখন আমেরিকার ভিসা নিষেধাজ্ঞার কারণে আওয়ামী নেতারা নিজেদেরকে সাধু দেখানোর নাটকে ব্যাস্ত , এখন তাদের নেতাকর্মীদের বলছেন ‘কোনো অবস্থাতেই আক্রমণকারী হবেন না।’। তিনি বলেন, কয়লা ধুলে যেমন ময়লা যায় না,তেমনি হামলাবাজ,মামলাবাজ আওয়ামী লীগ আক্রমনকারীর তকমা থেকে মুক্ত থাকতে পারবে না, ভোট চোরের অপবাদ থেকেও মুক্ত হতে পারবে না। আওয়ামী লীগ ও তার সরকার নিপীড়নকারী ফ্যাসিস্ট সরকারে পরিণত হয়েছে।

তিনি আজ সকালে ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট পৌর শহরের পুরাতন বাসস্ট্যান্ডে দলীয় কার্যালয়ে উপজেলা ও পৌর বিএনপির নেতাকর্মীদের সাথে মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেন। ‘সরকার সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের প্রক্রিয়া শুরু করেছ,তা শেষের পথে’

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের এ বক্তব্য উল্লেখ করে মতবিনিময় সভায় তিনি আরও বলেন, একথায় অত্যন্ত স্পষ্ট হয়েছে যে, তারা আবারও পরিকল্পিত ভাবে প্রহসনের একতরফা নির্বাচনের ষড়যন্ত্র করছে। জনগণ এবার তা মেনে নেবে না। তিনি বলেন, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের একমাত্র প্রতিবন্ধকতা আওয়ামীলীগের সরকার এবং একমাত্র গ্যারান্টি আওয়ামী সরকারের পদত্যাগ, পার্লামেন্ট বাতিল ও নির্দলীয় তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন। এর বাহিরে যে কোনও পদক্ষেপ সরকারের কূটকৌশল, ষড়যন্ত্র ছাড়া আর কিছুই নয়।

তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের ভিসা নিষেধাজ্ঞার সতর্কতার প্রভাব ব্যাপক ও সুদুরপ্রসারী। প্রহসনের একতরফা নির্বাচনের উদ্যোগের বিরুদ্ধে সরকারের গালে চপটাঘাত। আর সরকার বলছে তাদের মাথা ব্যাথা নাই। চড় খেয়েও সরকার লজ্জা শরমের মাথা খেয়ে বলছে চড়ও মারে নাই, ব্যাথাও লাগে নাই। এর পরও সরকার যদি এক গুয়েমি করে প্রহসনের নির্বাচনের দিকে হাটে, তার দায় দায়িত্ব তাদেরকেই বহন করতে হবে।

তিনি বলেন, ভিসা নিষেধাজ্ঞার সতর্কতা নিয়ে আওয়ামী নেতারা মিথ্যাচার ও বিভ্রান্তি সৃস্টির প্রজেক্ট হাতে নিয়েছে। বাংলাদেশের জন্য আমেরিকার ভিসানীতি নিয়ে বিএনপির চাপে থাকার কোনও প্রশ্নই ওঠে না। এই পদক্ষেপ আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে । আমেরিকার ভিসা নীতি যে কারণে নিয়েছে,তার সব কিছুই আওয়ামী লীগ করেছে। ভোট চুরি, ভোটারদের ভয় দেখানো, সভা-সমাবেশ ও স্বাধীন মত প্রকাশে প্রতিবন্ধকতা সৃস্টি বিগত ১৫ বছরে আওয়ামী সরকারের নিত্যদিনকার ঘটনা, এখনও তারা এসব অপকর্মে জড়িত। সুষ্ঠু ও গণতান্ত্রিক নির্বাচনে তারাই প্রতিবন্ধক। তাই আমেরিকার ভিসা নীতিতে আওয়ামী লীগই চাপে, দুশ্চিন্তায় আছ । তাদের দুনিয়া ছোট হয়ে আসছে, গলা শুকিয়ে গেছে।

তিনি বলেন, সরকারের মন্ত্রীরা বলছে গাজীপুরের নির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে।এক গাজীপুরের সিটি নির্বাচন দিয়ে আওয়ামী লীগের ১৫ বছরের ভোট চুরি,ষড়যন্ত্র ও প্রহসনের নির্বাচনের কলঙ্কিত ইতিহাস মুছা যাবে না। দেশ বিদেশে গ্রহনযোগ্য, সুষ্ঠু জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রত্যাশা এবং আওয়ামী সরকারের পদত্যাগ ও নির্দলীয় নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবীর প্রেক্ষাপটে সরকার লোক দেখানো নির্বাচন করেছে। এর আগেও ২০১৪ সালের জাতীয় নির্বাচনের আগেও সিটি নির্বাচন করেছিল। সে সময় গাজীপুরসহ অধিকাংশ সিটিতে বিএনপির প্রার্থীরা বিজয়ী হয়েছিলেন। কিন্তু পরবর্তীতে জাতীয় নির্বাচনে ভোট চুরি করেছিল ন্যাক্কার জনক ভাবে। জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে এসব সিটি নির্বাচন সরকারের ফাঁদ।সিটি নির্বাচনের জয়-পরাজয়ে সরকারে থাকা না থাকা নির্ভর করে না। সেজন্য সুষ্ঠু নির্বাচনের নামে নাটক মন্চস্থ করছে সরকার। বিএনপি সরকারের এই ফাঁদে পা দেয় নাই। গাজীপুর দেখিয়ে সরকার দেশ বিদেশে নিরপেক্ষ, সুষ্ঠু নির্বাচনের আকাঙ্খা নস্যাত করতে পারবে না। সরকারের কূট কৌশল, চালাকি সবাই জানে। আওয়ামী লীগের অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন হবে না। তিনি বলেন, সরকারের বিদায় ঘন্টা বেজে গিয়েছে। পতন ঘটবেই। চূড়ান্ত আন্দোলনের জন্য সবাইকে সর্বোচ্চ প্রস্তুতি নিতে হবে। দেশের লুন্ঠিত মালিকানা জনগণের কাছে ফিরিয়ে দিতে হবে।

ময়মনসিংহ উত্তর জেলা বিএনপির সদস্য আসলাম মিয়া বাবুলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন জেলা বিএনপির সদস্য হানিফ মোহাম্মদ শাকের উল্লাহ, বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক আমজাদ আলী, আবু হাসনাত বদরুল কবীর, আলী আশরাফ, আলমগীর আলম বিপ্লব, জেলা মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদিকা হোসনে আরা নীলু,জেলা যুব দলের সহ সভাপতি আবদুল আজিজ খান, তারিকুল ইসলাম চঞ্চল, যুবদল নেতা আবদুল মালেক সেহান, জেলা ছাত্র দলের সিনিয়র সহ সভাপতি আসাদুজ্জামান আসিফ, বিভাগীয় শ্রমিক দলের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল গণি, উপজেলা মৎস্যজীবী দলের আহ্বায়ক মোশাররফ হোসেন, পৌর স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক মেহেদী হাসান দুলাল, পৌর ছাত্র দলের সদস্য সচিব তাজবীর হোসেন অন্তর, উপজেলা ছাত্র দলের যুগ্ম আহ্বায়ক মির্জা তায়েব প্রমুখ।

এ জাতীয় আরো খবর..

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত আজকের অর্থনীতি ২০১৯।

কারিগরি সহযোগিতায়:
x