শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ১১:১৯ পূর্বাহ্ন

আদালতের রায় বাস্তবায়নের বিরুদ্ধে অপপ্রচার বন্ধের দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ২৯ মে, ২০২৩

নিউজটি শেয়ার করুন

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় কর্তৃক আদালতের রায় বাস্তবায়নের বিরুদ্ধে উদ্দেশ্যমূলকভাবে অপপ্রচার চালানো হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের ‘ইমপ্লিমেন্ট জেনারেশন প্রোগ্রাম ফর দি পুউরেস্ট (ইজিপিপি) প্রকল্পের আত্মীকরণকৃত উপ-সহকারি প্রকৌশলীরা। তারা অপপ্রচার বন্ধ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে সহযোগিতার জন্য সকলের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

আজ সোমবার হাইকোর্টের সামনে আয়োজিত মানববন্ধন-সমাবেশ থেকে এই দাবি জানান তারা। আদালতের আদেশে আত্মীকরণের মাধ্যমে নিয়োগ পাওয়া দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের উপ-সহকারি প্রকৌশলী মো. আসলাম হোসেনের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তৃতা করেন উপ-সহকারি প্রকৌশলী মো. মামুনুর রশীদ, মো. মাশরুবা রাসেল, মো. জাহিরুল ইসলাম, মো. হেকমত আলী, শহীদুল ইসলাম ও ফেরদৌস আলম।

সমাবেশে প্রকৌশলী মো. আসলাম হোসেন বলেন, মো. মনসুর আলীসহ ‘ইমপ্লিমেন্ট জেনারেশন প্রোগ্রাম ফর দি পুউরেস্ট (ইজিপিপি) প্রকল্পের ১২৩ জন কর্তৃক দায়েরকৃত রিট পিটিশনের প্রেক্ষিতে উচ্চ আদালত তাদেরকে দুর্যোগ ব্যবস্থা অধিদপ্তরের রাজস্বখাতভুক্ত করার রায় দেয়। সেই রায়ের আলোকে ওই ১২৩ জন কর্মকর্তার মধ্যে তিন ধাপে ৪৬ জনকে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা পদে আত্মীকরণ করা হয়েছে। কিন্তু আদালতের রায় পাওয়া আরেকটি পক্ষ এই নিয়ে অপপ্রচারে লিপ্ত হয়েছে। অথচ এই নিয়োগে কোন ধরণের আইন অমান্য হয়নি। এমনকি কাউকে বঞ্চিতও করা হয়নি। তিনি আরো বলেন, আত্মীকরণকৃত ওই সকল কর্মকর্তারা প্রধানমন্ত্রী অগ্রাধিকার ভিত্তিক ‘ভূমিহীন ও গৃহহীনদের জন্য গৃহ নির্মাণ’ প্রকল্পসহ গ্রামীণ অবকাঠামো সংস্কার, রক্ষণাবেক্ষণসহ অন্যান্য প্রকল্প সফল ভাবে বাস্তবায়নে বিশেষ ভূমিকা রাখছে।

আদালতের রায়ের আলোকে সকলেই পর্যায়ক্রমে নিয়োগ পাবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন প্রকৌশলী মামুনুর রশীদ। তিনি বলেন, আমরা ২০১১ সালে চাকুরিতে যোগদানের পর দীর্ঘ ১২ বছর একটি অনিশ্চিত ভবিষ্যতের উপর চাকরি করেছি। আমাদের দায়েরকৃত রিট মামলাটি চূড়ান্ত নিষ্পত্তি পর আদালতের নির্দেশনার আলোকে পদ খালি সাপেক্ষে ১২৩ জন থেকে পর্যায়ক্রমে আত্মীকরণ করা হয়েছে। এখানে কেউ বঞ্চিত হওয়ার কোন ইস্যু নেই। বরং আদালতের রায় বাস্তবায়নের মাধ্যমে ন্যায় বিচার নিশ্চিত হয়েছে। বিভ্রান্তিকর তথ্য দিয়ে মন্ত্রণালয় ও সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করার অপচেষ্টা বন্ধের দাবি জানান তিনি।

সমাবেশে বলা হয়, হাইকোর্টে পিটিশন নং-১৬৩৮/২০১৬-এর রিট পিটিশনারগণ ২০১১ সালের ১০ আগষ্ট ‘অপারেশন সাপোর্ট টু দা ইজিপিপি’ শীর্ষক প্রকল্পে যোগদান করলে পরবর্তীতে প্রকল্পে মেয়াদ শেষ হওয়ায় পর ‘এসএমওডিএমআরপিএ’ প্রকল্পে উপ- সহকারী প্রকৌশলী হিসেবে স্থানান্তরিত হন। রিটের আলোকে হাইকোর্ট ১২৩ জনকে পদ শূন্য থাকা সাপেক্ষে পর্যায়ক্রমে আত্মীকরণের নির্দেশনা দেয়।

এ জাতীয় আরো খবর..

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত আজকের অর্থনীতি ২০১৯।

কারিগরি সহযোগিতায়:
x