শুক্রবার, ৩১ মে ২০২৪, ০৫:১৩ পূর্বাহ্ন

কর্মসূচিতে আহত নেতাকর্মীদের দেখতে ছুটে গেলেন সেলিম

কুমিল্লা প্রতিনিধি
  • আপডেট টাইম : বুধবার, ৭ জুন, ২০২৩

নিউজটি শেয়ার করুন

মুজিবুল হকের কর্মীদের হাতে আহত নেতাকর্মীদের দেখতে গিয়েছেন আওয়ামী লীগ নেতা এম. তমিজ উদ্দিন ভূঁইয়া সেলিম। আজ বুধবার সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত কুমিল্লা ও ঢাকার বিভিন্ন হাসপাতালে ছুটে বেরিয়েছেন এই নেতা।

এরআগে গতকাল মঙ্গলবার সকালে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার হুমকির প্রতিবাদে এবং জামায়াত-শিবিরের নৈরাজ্যের বিরুদ্ধে পূর্ব প্রস্তুতিতে বিক্ষোভ মিছিলের ডাক দেয় আওয়ামী লীগ নেতা এম. তমিজ উদ্দিন ভূঁইয়া সেলিমের নেতৃত্বে চৌদ্দগ্রামের পক্ষ আওয়ামী লীগের একটি অংশ।

জানা যায়, প্রতিবাদ মিছিল কে কেন্দ্র করে বিপক্ষ অবস্থানে অবস্থান করেন চৌদ্দগ্রামের সাবেক রেলমন্ত্রী ও স্থানীয় সংসদ সদস্য মুজিবুল হক অনুসারীরা। তারা বিভিন্ন পয়েন্টে পয়েন্টে দেশীয় অস্ত্র হাতে নিয়ে মহড়া শুরু করতে থাকে। তমিজ উদ্দিন সেলিম অনুসারীরা সমাবেশে অংশ নিতে যেতে চেষ্টা করলে তাদেরকে রাস্তায় আটকে রেখে গাড়ি ভাঙচুর করে । এ সময় প্রায় অর্ধশত নেতাকর্মী আহত হয় ।

এসময় যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা বাহার উদ্দিন রেজা (বীরপ্রতীক) কে কুপিয়ে আহত করে। সেই সাথে অনেকেই গুরতর আহত হয় । দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সেলিমের গাড়ি বহরে হামলা করে । তার নেতাকর্মী আহত হলেও এলাকাবাসী তাকে নিয়ে হামলাকারীদের হাত থেকে নিরাপদ স্থানে নিয়ে যায় । ঘটনা স্থলে আহতের সাথে চৌদ্দগ্রামসহ শহরে তার অনেক স্থানের নেতাকর্মী আহত হন ।

তাদেরকে দেখতে আজ কুমিল্লার বিভিন্ন হসপিটালে যান এম. তুমিজ উদ্দিন ভূঁইয়া সেলিম। সে প্রথমে যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা বাহার উদ্দিন রেজা (বীরপ্রতীক) কে দেখতে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে যান। সেখানে আরো নেতাকর্মীদের খোঁজখবর নিয়ে চলে আসেন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে । সেখানে তার এক কর্মী গুলিবিদ্ধ হয়ে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে বলে জানান তিনি।

এম.তমিজ উদ্দিন সেলিম বলেন, চৌদ্দগ্রামের বর্তমান সংসদ সদস্য মুজিবুল হককে কালকের ঘটনা মাধ্যমে প্রত্যাখ্যান করেছে নেতা কর্মীরা। কুমিল্লা চৌদ্দগ্রামবাসী তার নির্যাতনে নির্যাতিত। এতদিন সে মামলা দিয়ে জনগণকে হয়রানি করতো । এখন দেখি সে অস্ত্র বাহিনী ঘরে তুলেছে। আমরা বঙ্গবন্ধুর আদর্শের কর্মী তার আদর্শ বুকে ধারণ করে আগামীতে কুমিল্লা চৌদ্দগ্রামকে জামাত সন্ত্রাস মুক্ত চোদ্দগ্রাম গঠন করব। যে চৌদ্দগ্রামে মুজিবুল হক বাহিনীর কোন অস্তিত্ব থাকবে না।

সেলিম বলেন, আমাকে হত্যার উদ্দেশ্যে এই হামলা করেছে। উদ্দেশ্য হাসিল করতে না পেরে এখন আবল তাবল বলছে । আমি সকল সাংবাদিকদের ধন্যবাদ জানাই। সাংবাদিক ভাইদের জন্য আজ সারাবিশ্ব মুজিবুল হকের সন্ত্রাসী রূপ দেখতে পেল।

এ জাতীয় আরো খবর..

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত আজকের অর্থনীতি ২০১৯।

কারিগরি সহযোগিতায়:
x