বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৫:৩৫ অপরাহ্ন

রাজউককে ধন্যবাদ জানিয়ে, কাউন্সিলরের কার্যালয় উচ্ছেদের দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট টাইম : শুক্রবার, ৯ জুন, ২০২৩

নিউজটি শেয়ার করুন

পুরান ঢাকার গেন্ডারিয়ায় বহুল আলোচিত ডিআইটি পুকুর দখলের বিরুদ্ধে অভিযান এবং পুকুর পাড়ের অবৈধ স্থাপনা ও দোকানপাট উচ্ছেদে অভিযান পরিচালনা করায় রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক)-কে ধন্যবাদ জানিয়েছে পরিবেশবাদী সংগঠনগুলোর সমন্বিত জোট “বাংলাদেশ প্রকৃতি সংরক্ষণ জোট (বিএনসিএ)”। আজ (৯ জুন) শুক্রবার সংগঠনের পক্ষে রাজউককে ধন্যবাদ জানান বিএনসিএ-এর আহবায়ক অধ্যাপক ড. আহমদ কামরুজ্জামান মজুমদার এবং সদস্য সচিব মুহাম্মদ আনোয়ারুল হক।

বাংলাদেশ প্রকৃতি সংরক্ষণ জোট (বিএনসিএ) রাজউককে ধন্যবাদ জানানোর পাশাপাশি পুকুর ভরাট করে অবৈধভাবে নির্মিত ৪৭ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর সাহানা আক্তারের অস্থায়ী কার্যালয়টিও উচ্ছেদ করার দাবি জানায়। সেই সাথে রাজউকের অভিযানের সময় পুলিশের উপর হামলা তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছে বিএনসিএ। হামলাকারীদের চিহ্নিত করে শাস্তির আওতায় আনার দাবি জানাচ্ছে প্রকৃতি সংরক্ষণে নিবেদিত এই জোট।

যেহেতু এই পুকুর ভরাটে কাউন্সিলর সাহানা আক্তার ও তার বাবা সাইদুল ইসলাম শহিদ নেতৃত্ব দিয়েছেন তাই বিএনসিএ মনে করে পুকুরের জায়গা থেকে তাদের কার্যালয়টি সরানো না হলে আবারও দখল হবে পুরান ঢাকার এই ফুসফুসটি। তাই পরচা অনুযায়ী অবশিষ্ট অবৈধ স্থাপনা দুটিও উচ্ছেদ করে দ্রুত এই পুকুরটিকে ঘিরে একটি জলকেন্দ্রীক পার্ক গড়ে তোলার দাবি জানাচ্ছে বিএনসিএ।

উল্লেখ্য, কাউন্সিলর সাহানা আক্তার, তার বাবা সাবেক কাউন্সিলর সাইদুল ইসলাম শহিদ এবং আরো কিছু প্রভাবশালী ব্যক্তি কর্তৃক কয়েক বছর ধরে অবৈধভাবে দখল হতে থাকা পুরান ঢাকা গুরুত্বপূর্ণ পুকুরটি রক্ষায় সম্প্রতি স্থানীয় লোকজন সোচ্চার হয়। সে সাথে পরিবেশবাদী বিভিন্ন সংগঠনের প্লাটফর্ম বিএনসিএ-সহ বিভিন্ন পরিবেশবাদী সংগঠন, পরিবেশ কর্মী ও সাংবাদিকরাও সোচ্চার হয়।

ডিআইটি পুকুর রক্ষার দাবিতে গত ২ জুন শুক্রবার পুকুরটির পাড়ে একটি মানববন্ধন করার ঘোষণা দিয়েছিল স্থানীয় জনগণ। সেই মানববন্ধনে সংহতি প্রকাশ করে অংশগ্রহণ করতে উপস্থিত হয়েছিলেন বাংলাদেশ প্রকৃতি সংরক্ষণ জোট (বিএনসিএ) এর আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. আহমদ কামরুজ্জমান মজুমদার, যুগ্ম আহবায়ক সুমন শামস, ইবনুল সাঈদ রানা, নগর পরিকল্পনাবিদ অধ্যাপক ড. আদিল মোহাম্মদ খানসহ পরিবেশবাদী বিভিন্ন সংগঠনের প্রতিনিধি। পুলিশি বাঁধায় সেদিন সেই প্রতিবাদ কর্মসূচী অনুষ্ঠিত হতে পারেনি। কিন্তু পরিবেশবাদী ও সাংবাদিকরা তাতে নিরব হয়ে বসে থাকেননি। এরই ধারাবাহিকতায় ৮ জুন বৃহস্পতিবার গেন্ডারিয়ার ডিআইটি পুকুর পাড়ে রাজউক অভিযান পরিচালনা করে। অভিযানের সময় পুরান ঢাকার গেন্ডারিয়া এলাকায় শত বছরের পুরোনো ডিআইটি পুকুর ভরাট করে নির্মিত স্থাপনার বেশির ভাগই গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। তবে কাউন্সিলরের কার্যালয়সহ দ্বিতল দুটি স্থাপনা ভাঙা হয়নি। এ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন স্থানীয় বাসিন্দারা।

রাজধানী, বিশেষ করে পুরান ঢাকা যখন চরমভাবে জলাধার শূণ্যতায় ভুগে নানান বিপর্যয়ের মুখে পড়ছে, যখন ঢাকায় আগুন নিয়ন্ত্রণে পানি পাওয়া যায় না, যখন ঢাকায় চলছে তীব্র তাপপ্রবাহ তখনও এই শহরে নানান কৌশলে চলছে প্রাকৃতিক জলাধার দখলের চেষ্টা। ডিআইটি প্রকল্পের পুকুরটি আশাপাশের এলাকার তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণ, অগ্নি নির্বাপন, ভূগর্বস্থ পানির সংস্থান, বায়ু দূষণ নিয়ন্ত্রণসহ নানানভাবে ভূমিকা রেখে আসছে।

এ জাতীয় আরো খবর..

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত আজকের অর্থনীতি ২০১৯।

কারিগরি সহযোগিতায়:
x