রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৩:০০ অপরাহ্ন

ভিভো ওয়াই৩৬: রুচিশীল এবং মাল্টিটাস্কিং স্মার্টফোন

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ২৩ জুলাই, ২০২৩

নিউজটি শেয়ার করুন

হাতের স্মার্টফোনটি যেমন হাজার কাজে অন্যতম মাধ্যম, তেমনি বহন করে ব্যক্তির রুচির পরিচয়। তাই সকলেই চান এমন স্মার্টফোন যা মাল্টিটাস্কিং হওয়ার পাশাপাশি হবে রুচিশীল। বহুজাতিক স্মার্টফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ভিভো এনেছে রুচিশীল এবং নান্দনিক স্মার্টফোন ভিভো ওয়াই৩৬।

ফোনটির আসল চমক এর প্রিমিয়াম ক্রিস্টাল গ্রিপ গ্লাস, ব্যাটারীর চার্জের স্থায়ীত্ব আর শক্তিশালী চার্জার। এছাড়া বিশাল ধারণ ক্ষমতা এবং অসাধারণ ফিচারের সমাহার যেমন মেটাবে কাজের প্রয়োজন তেমনি মেটাবে তারুণ্যেরও দাবি। ২৬,৯৯৯ টাকায় মিড রেঞ্জের মধ্যে প্রিমিয়াম স্মার্টফোন ব্যবহারের অনুভূতি দিতে একাই একশ ভিভো ওয়াই৩৬।

ব্যাক সাইডে গোল্ডেন রিপল প্রসেস ব্যবহারে দেখতে বেশ দারুণ ভিভো ওয়াই৩৬ এর ভাইব্রেন্ট গোল্ড রঙের স্মার্টফোনটি। পাশাপাশি ক্যামেরা সেগমেন্টে ব্যবহৃত রেইনবো রিং বেশ শৈল্পিক ভাব তুলে ধরে। বেশ অন্যরকম, তাইনা? দুইটি রঙের মধ্যে অপরটি হলো মেটিওর ব্ল্যাক। যারা কালো রঙ ভালোবাসেন তারা পছন্দের তালিকায় রাখতে পারেন মেটিওর ব্ল্যাক রঙের ভিভো ওয়াই৩৬।

৪৪ ওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন সুপার চার্জার দিয়ে মাত্র পনের মিনিটে হবে ৩০ শতাংশ চার্জ। মাত্র এক ঘন্টার ফুল চার্জে পাঁচ হাজার মিলি অ্যাম্পিয়ারের ব্যাটারি নির্ঝঞ্ঝাটে ব্যবহার করা যাবে প্রায় দেড় দিন। তাই ভিভো ওয়াই৩৬ এ বারবার চার্জ দেওয়ার ঝামেলা এড়িয়ে কাজ করা যাবে নিশ্চিন্তে।

মাল্টিটাস্কিং এর জন্য বিখ্যাত কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৬৮০ প্রসেসর রয়েছে ভিভো ওয়াই৩৬ এ। অপারেটিং সিস্টেম হিসেবে রয়েছে সর্বশেষ অ্যান্ড্রয়েড ১৩ ভিত্তিক অপারেটিং সিস্টেম ফানটাচ ওএস ১৩। ৮ জিবি রম এবং ১২৮ জিবি রমের সুবিধা পাওয়া যাচ্ছে। ফলে এক ট্যাপেই যেকোনো অ্যাপ ওপেন, দ্রুত পরিবর্তন এবং সকল অ্যাপ ডেটা সংরক্ষণ হয়েছে অনেক স্মুথ। ডিলিট করতে হচ্ছে না কোনো অ্যাপ কিংবা অ্যাপ ডেটা। পাশাপাশি ২৭ টি অ্যাপ এক সাথে ব্যাকগ্রাউন্ডে রেখে অনেক কাজ একসাথে করা সম্ভব হয়েছে। যা মাল্টিটাস্কিং এর অন্যন্য অভিজ্ঞতা পাওয়া যাবে স্মার্টফোনটিতে। আপডেটেড সফটওয়্যার এবং হিটিং সিস্টেমে উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহার করায় দীর্ঘক্ষণ গেইমিং এবং কন্টেন্ট দেখেও গরম হয় না স্মার্টফোনটি।

৫০ মেগাপিক্সেল রিয়ার ক্যামেরা, ২ মেগাপিক্সেল বোকেহ এবং ১৬ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা সময়ের দাবী মিটিয়ে দেয় বেশ ভালো মানের ছবি । পোর্ট্র্রেট মোডটির পারফর্মেন্স এতো দুর্দান্ত যে, অনেকেরই আলোকচিত্রী হবার শখ জাগবে। স্ট্যাবিলাইজার থাকায় চলন্ত অবস্থাতেও বেশ ভালো মানে ভিডিও করা যায়। স্মার্টফোনটির অন্যতম আকর্ষণীয় ও অভিনব ফিচার হলো এর ডাবল এক্সপোজার মোড। যা দুইটি ভিন্ন ভাবে তোলা ছবিকে একত্র করবে। পাশাপাশি বেশ দুর্দান্ত এবং সৃজনশীল ছবি দেবে।

সময়ের সাথে তাল মিলিয়ে নিত্যনৈমিত্তিক কাজকে আরও সহজ করতে স্মার্টফোনটি সংগ্রহ করা যাবে ভিভোর যেকোনো অথোরাইজড শো-রুম কিংবা ই-স্টোরে।

ভিভো প্রসঙ্গে

ভিভো একটি প্রযুক্তিভিত্তিক প্রতিষ্ঠান যা মানুষের চাহিদাকে প্রাধান্য দিয়ে স্মার্ট ডিভাইস ও ইন্টেলিজেন্ট সার্ভিসের মাধ্যমে পণ্য উৎপাদন করে। মানুষ আর ডিজিটাল ওইয়ার্ল্ডের মধ্যে সেতুবন্ধন তৈরি করাই প্রতিষ্ঠানটির উদ্দেশ্য। অনন্য সৃজনশীলতার মাধ্যমে ভিভো ব্যবহারকারীদের হাতে যথোপযুক্ত স্মার্টফোন ও ডিজিটাল আনুষাঙ্গিক তুলে দিচ্ছে। প্রতিষ্ঠানের মূল্যবোধকে অনুসরণ করে ভিভো টেকসই উন্নয়ন কৌশল বাস্তবায়ন করেছে; সমৃদ্ধ ও দীর্ঘস্থায়ী বিশ্বমানের প্রতিষ্ঠান হওয়াই যার ভিশন।

স্থানীয় মেধাবী কর্মীদের নিয়োগ ও উন্নয়নের মাধ্যমে শেনজেন, ডনগান, নানজিং, বেজিং, হংঝু, সাংহাই, জিয়ান, তাইপে, টোকিও এবং সান ডিয়াগো এই ১০টি গবেষণা ও উন্নয়ন কেন্দ্রে (আরএন্ডডি) কাজ করছে ভিভো। যা স্টেট-অফ-দ্য-আর্ট কনজ্যুমার টেকনোলজির উন্নয়ন, ফাইভজি, আর্টিফিসিয়াল ইন্টেলিজেন্স, ইন্ডাস্ট্রিয়াল ডিজাইন, ফটোগ্রাফি এবং আসন্ন প্রযুক্তির ওপর কাজ করে যাচ্ছে। চীন, দক্ষিণ ও দক্ষিণপূর্ব এশিয়ায় ভিভোর পাঁচটি প্রোডাকশন হাব আছে (ব্র্যান্ড অথোরাইজড ম্যানুফ্যাকচারিং সেন্টারসহ) যেখানে বছরে প্রায় ২০০ মিলিয়ন স্মার্টফোন বানানোর সামর্থ্য আছে। এখন পর্যন্ত ৬০টিরও বেশি দেশে বিক্রয়ের নেটওয়ার্ক আছে ভিভোর এবং বিশ্বজুড়ে ৪০০ মিলিয়নের বেশি ভিভো স্মার্টফোন ব্যবহারকারী রয়েছে।

এ জাতীয় আরো খবর..

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত আজকের অর্থনীতি ২০১৯।

কারিগরি সহযোগিতায়:
x