শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ১১:২১ পূর্বাহ্ন

জয়পুরহাট-২ আসনে জনপ্রিয়তার শীর্ষে তাজমহল হীরক

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট টাইম : বুধবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২৩

নিউজটি শেয়ার করুন

আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জয়পুরহাট-২ আসনে (কালাই, ক্ষেতলাল ও আক্কেলপুর) আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশী মো. তাজমহল হীরক জনপ্রিয়তায় এগিয়ে রয়েছেন। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক উপকমিটির সদস্য মো. তাজমহল হীরক তার নির্বাচনী এলাকায় বিরতিহীনভাবে গণসংযোগ চালিয়ে যাচ্ছেন। এলাকাবাসীর কাছে আওয়ামী লীগ সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকাণ্ড তুলে ধরছেন এবং এসব তথ্য সংযুক্ত লিফলেট বিতরণ করছেন। এলাকাবাসী আশা করছেন আগামী সংসদ নির্বাচনে মো. তাজমহল হীরক মনোনয়ন পাবেন।

পরিচ্ছন্ন ও ক্লিন ইমেজের রাজনীতিবিদ মো. তাজমহল হীরক। সততা ও নিষ্ঠার সাথে ছাত্রলীগের বিভিন্ন পর্যায়ে নেতৃত্ব দিয়ে এসেছেন। এখন আওয়ামী লীগের মত ঐতিহ্যবাহী সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটিতে আছেন তাজমহল হীরক। তিনি জয়পুরহাটের মানুষের পাশে সবসময় আছেন। এলাকায় সেবামূলক কার্যক্রমের জন্য প্রশংসার দাবিদার তিনি।

জানা গেছে, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া উপ-কমিটির সদস্য ছাড়াও মো. তাজমহল হীরক বিভিন্ন পদে সফলতার সাথে দায়িত্ব পালন করেছেন। সাবেক সহ-সম্পাদক, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় উপ- কমিটি। সাবেক সদস্য, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় উপ- কমিটি। সাবেক ভারপ্রাপ্ত সভাপতি, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়। সাবেক সহ- সভাপতি, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়। সাবেক সদস্য, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কমিটি (মৌখিক)। সাবেক আহ্বায়ক, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হল শাখা, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়। সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক, জাতির পিতা শেখ মুজিবুর রহমান হল শাখা, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়। সাবেক ছাত্রলীগ নেতা, সরকারি শাহ সুলতান কলেজ, বগুড়া। সাবেক সদস্য, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ২০ তম জাতীয় কাউন্সিলে সম্মেলন প্রস্তুত দপ্তর উপ-কমিটি। সাবেক সদস্য, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ২১ তম কাউন্সিলে সম্মেলন প্রস্তুত দপ্তর উপ-কমিটি। সাবেক সদস্য, জাতীয় সংসদ নির্বাচন ২০১৮ এর বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নির্বাচন পর্যবেক্ষক সমন্বয় উপ-কমিটি। ২০০১ সাল থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত বিএনপি-জামাত জোট সরকারের গুন্ডাবাহিনী ছাত্রদল ও জামাতের রগ কাটার দল শিবিরের দ্বারা মারাত্নকভাবে হামলা ও নির্যাতনের শিকার হন। তারা তার নামে বিভিন্ন মামলা দেয় ঐ সময়। ১/১১(ওয়ান এলিভেন) এর সময় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে নেত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার মুক্তি আন্দোলনে নেতৃত্ব দেন। নেত্রীর মুক্তির জন্য দুর্বার আন্দোলন গড়ে তুলেন, এক পর্যায়ে পুলিশ ও যৌথবাহিনীর গুলি ও টিয়ারসেলের আঘাতে আহত হন। অতপর গ্রেপ্তার ও নির্যাতনের শিকার হন। তখন তার সামনেই পুলিশ ও যৌথবাহিনীর ছোড়া গুলি এক রিকশা চালকের মাথায় লাগে বিশ্ববিদ্যালয়ে এবং সে সাথে সাথে মারা যায়। বিএনপি ও শিবিরের সন্ত্রাসীরা ২০১৮ সালের ৪ আগস্ট ছাত্রদের নিরাপদ সড়ক আন্দোলনে অনুপ্রবেশ করে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সভাপতির ধানমন্ডিস্থ রাজনৈতিক কার্যালয়ে হামলা চালালে প্রতিরোধ করেন। প্রতিরোধ করতে গিয়ে আহত হন এ নেতা মো. তাজমহল হীরক।

মো. তাজমহল হীরক রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগ থেকে বি.এস.এস (অনার্স) ও এম.এস.এস (মাস্টার্স) সম্পন্ন করেন।

এ জাতীয় আরো খবর..

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত আজকের অর্থনীতি ২০১৯।

কারিগরি সহযোগিতায়:
x