সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ০৫:০৩ পূর্বাহ্ন

২০২৫ অর্থবছরে ১৪ বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগের ঘোষণা আদানির

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ২১ মার্চ, ২০২৪

নিউজটি শেয়ার করুন

ভারতের বৃহত্তম বহুজাতিক প্রতিষ্ঠান আদানি গ্রুপ দেশটিতে ১৪ বিলিয়ন মার্কিন ডলার বা ১.২ লাখ কোটি রুপি বিনিয়োগ করতে যাচ্ছে। প্রতিষ্ঠানটির আগামী বছরের মার্চে শেষ হতে যাওয়া অর্থ-বছরের মধ্যে এই বিনিয়োগ করা হবে বলে ঘোষণা দিয়েছে আদানি। এ বিনিয়োগের সিংহভাগ যাবে সবুজ বা নবায়নযোগ্য জ্বালানি খাতে।

রিনিউয়েবল পাওয়ার, গ্রিন হাইড্রোজেন ও গ্রিন ইভাকুয়েশনের মতো প্রতিষ্ঠানটির নানা গ্রিন এনার্জি ব্যবসায়ে ১.২ লাখ কোটি রুপির ৭০ শতাংশ বিনিয়োগ করা হবে। বাকি ৩০ শতাংশ অর্থ বিমানবন্দর ও নদীবন্দর সম্প্রসারণে ব্যবহার করা হবে।

চলতি অর্থবছরের বিনিয়োগের তুলনায় ২০২৫ সালের পরিকল্পিত এই বিনিয়োগের পরিমাণ ৪০ শতাংশ বেশি হতে যাচ্ছে। এ বছরের মার্চের মধ্যে ইতোমধ্যে প্রায় ১০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার বিনিয়োগ করা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। আগামী ৭-১০ বছরের মধ্যে প্রতিষ্ঠানের ১০০ বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগের সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করে দ্বিগুণ অর্থাৎ ২০০ বিলিয়ন ডলার করার পরিকল্পনা করেছে আদানি। গ্রুপের আগামী ৫-১০ বছরের মধ্যে বিমানবন্দর ব্যবসায়ে ৬০ হাজার কোটির বেশি রুপি বিনিয়োগের ঘোষণার পরপরই এই নতুন পরিকল্পনার কথা জানানো হলো।

এ ব্যাপারে আদানি পোর্টস অ্যান্ড স্পেশাল ইকোনমিক জোন লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক করণ আদানি জানান, তাদের কোম্পানি পাঁচ বছরের মধ্যে টার্মিনাল ও রানওয়ের সক্ষমতায় অর্ধেক বিনিয়োগ করার পরিকল্পনা করছে এবং বাকি অর্ধেক আগামী ১০ বছরের মধ্যে বিমানবন্দরগুলোর সিটি-সাইড উন্নয়নের জন্য বরাদ্দ করা হবে। বিমান চলাচলের বাজারের ক্রমবর্ধমান চাহিদাকে পুঁজি করে, আদানি গ্রুপ ২০৪০ সালের মধ্যে বিমানবন্দরের সক্ষমতা দ্বিগুণ করার পরিকল্পনা করছে৷

তিনি বলেন, “আমাদের বিমানবন্দরগুলোতে বর্তমানে বছরে ১১০ মিলিয়ন যাত্রী (এমপিএ) ধারণের সক্ষমতা রয়েছে৷ এই সমক্ষমতা বাড়ানো হবে আরও তিনগুণ। লক্ষ্ণৌতে একটি নতুন টার্মিনাল তৈরি করা হয়েছে। আগামী মার্চের মধ্যে নাভি মুম্বাইতে একটি টার্মিনাল খোলা হবে। এরপর হবে গুয়াহাটিতে। আমরা আহমেদাবাদ ও জয়পুরের জন্যও নতুন টার্মিনালের পরিকল্পনা করছি। সামগ্রিকভাবে, ২০৪০ সালের মধ্যে আমরা প্রায় ৩০০ এমপিএ’র একটি সম্মিলিত সক্ষমতার জন্য অপেক্ষা করছি।”

 

 

 

এ জাতীয় আরো খবর..

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত আজকের অর্থনীতি ২০১৯।

কারিগরি সহযোগিতায়:
x