শুক্রবার, ৩১ মে ২০২৪, ০৪:৫৭ পূর্বাহ্ন

স্বাধীনতার ৫০ বছর পরও দেশে নাগরিক ও ভোটাধিকার ভুলুন্ঠিত

অর্থনীতি ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ১৬ ডিসেম্বর, ২০২১

নিউজটি শেয়ার করুন

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা গাজী আতাউর রহমান বলেছেন, স্বাধীনতার দীর্ঘ ৫০বছর পরও স্বাধীনতার স্বপ্ন পুরণ হয়নি। শোষণ, বঞ্চনা ও বৈষম্যের বিরম্নদ্ধে মুক্তিযুদ্ধ হলেও এখন সর্বড়্গেেত্র চরম বৈষম্য চলছে। যা পাক হানাদার বাহিনীকেও হার মানিয়েছে। তিনি বলেন, ওই সময় মানুষ ভোট দিতে পারতো, এখন মানুষ ভোটও দিতে পারছে না। ধনী-দরিদ্রের বৈষম্য এখন অনেক বেশি। সামাজিক ন্যায় বিচার, মানবিক মূল্যবোধ ও অর্থনৈতিক বৈষম্য থেকে মুক্তির লড়্গে যুদ্ধ হয়েছিলে। এই সবগুলোর কোনটাই জাতি পায়নি। কেবলমাত্র একটি মানচিত্র ও পতাকা ছাড়া। দেশে মানবাধিকার বলতে নেই। তিনি বলেন, আšত্মর্জাতিক মানবাধিকার দিবসে বাংলাদেশের র‌্যাব ও পুলিশকে নিষিদ্ধ করেছে যুক্তরাষ্ট্র। র‌্যাব ও পুলিশ মানবাধিকার রড়্গায় চরমভাবে ব্যর্থ। ফলে দেশের ভাবমূর্তি সারাবিশ্বে লঙ্ঘিত। তিনি বলেন, দুর্নীতির কারণে সাবেক প্রধান বিচারপতির সাজা হয় এবং দেশ ত্যাগ করতে হয়েছে। তিনি বলেন, ড়্গমতার স্বার্থে রাজনীতিকে ব্যবহার করার কারণে দস্যুতায় পরিণত হয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে পুরানা পল্টনস্থ আইএবি মিলনায়তনে ইসলামী যুব আন্দোলন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আয়োজিত মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন প্রচার ও দাওয়াহ সম্পাদক মাওলানা আহমদ আবদুল কাইয়ুম, ইসলামী যুব আন্দোলনের কেন্দ্রীয় সেক্রেটারি জেনারেল আতিকুর রহমান মুজাহিদ, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সেক্রেটারি আলহাজ্ব আব্দুল আউয়াল মজুমদার, যুবনেতা মুহাম্মাদ মাহবুব আলম, প্রকৌশলী শেখ মুহাম্মাদ মারম্নফ। সংগঠনের ঢাকা মহানগর দড়্গণি সভাপতি সভাপতি আলহাজ্ব মুহাম্মাদ শফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মাওলানা মুহাম্মাদ আল-আমিন সোহাগের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন সংগঠনের ঢাকা মহানগর দক্ষিণের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মুফতী শওকত ওসমান, সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা মুহাম্মাদ নাজিমুদ্দিন, অর্থ সম্পাদক ক্বারী নাছির উদ্দীন, প্রচার সম্পাদক মুহাম্মাদ তসলিম উদ্দিন রম্নবেল, প্রকাশনা সম্পাদক কৃষিবিদ মুহাম্মাদ নাজমুল ইসলাম, দাওয়াত ও প্রশিড়্গণ সম্পাদক হাফেজ মাওলানা রশীদ আহমদ, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পাদক মুহাম্মাদ আব্দুলস্নাহ সাদ,তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক মুহাম্মাদ হাসান মাহমুদ, সমাজকল্যাণ সম্পাদক মুহাম্মাদ শাহ পরান, মহিলা ও পরিবার সম্পাদক মুহাম্মাদ আব্দুল ওয়াহাব, সংখ্যালঘু সম্পাদক আবুল কাশেম, উপ সম্পাদক মুহাম্মাদ হাসানুজ্জামান হিমেল প্রমুখ।

মাওলানা গাজী আতাউর রহমান আরো বলেন, দেশে এখন সত্যিকারের রাজনীতি নেই। এখন রাজনীতি করে চোর-বাটপাররা, কালো টাকার মালিকরা লুটপাট করে রাজনীতি নিয়ন্ত্রণ করে। ফলে একজন সরকার দলীয় সাংসদ আদম পাচার করে বিদেশে ১৪ বছলা সাজা ভোগ করছে। ফলে দেশকে কলঙ্কিত করছে। তিনি বলেন, দেশপ্রেমিক নাগরিক তৈরি করে দেশে নাগরিক ও ভোটাধিকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে। তিনি বলেন, এখন যারা আওয়ামীলীগ করে, তারাই স্বাধীনতায় বিশ্বাসী, না হলে তারা রাজাকার। তিনি অবাধ রাজনৈতিক ড়্গত্রে চর্চার পথ রম্নদ্ধ করে যারা লুটপাট এবং ভোটাধিকার হরণ করছে তাদের বিরম্নদ্ধে যুবসমাজকে ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে।
মাওলানা আহমদ আবদুল কাইয়ূম বলেন, যে চেতনা নিয়ে বাঙালি মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েছিলো, তা আজ সম্পূর্ণভাবে ভুলুণ্ঠিত। ক্ষমতাশীন সরকার একদলীয় শাসন প্রতিষ্ঠার চেষ্টা করছে। আমাদের আজ বাক স্বাধীনতা নেই। আমাদের মৌলিক স্বাধীনতা হরণ করা হয়েছে। ৫০ বছর পরও দেশে একদল অন্যেদলের কাছে নিরাপদ নয়, ইসলাম সবদলের সব মানুষের নিরাপদ নিশ্চিত করেছে। এজন্য ইসলামকে বিজয়ী করতে হবে।
আতিকুর রহমান মুজাহিদ বলেন, ১৬ ডিসেম্বর ‘মহান বিজয় দিবস’। আমাদের জাতীয় জীবনে এ দিবসটির গুরম্নত্ব ও তাৎপর্য অপরিসীম। যারা দেশের জন্য জীবন দিয়েছেন এবং মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করে অপরিসীম ত্যাগ স্বীকার করেছেন সেসব বীর মুক্তিযোদ্ধাসহ সমগ্র জাতির অবদানের কথা আমরা গভীর শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করছি ও দেশের জন্য যারা জীবন দিয়েছেন তাদের যথাযথ প্রতিদানের জন্য দোয়া করছি।

এ জাতীয় আরো খবর..

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত আজকের অর্থনীতি ২০১৯।

কারিগরি সহযোগিতায়:
x